fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ভিন রাজ্য থেকে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের হাতে জব কার্ড তুলে দিলো পশ্চিম বর্ধমান জেলার সালানপুর ব্লকের পঞ্চায়েত

শুভেন্দু বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল; পশ্চিম বর্ধমান জেলা প্রশাসন আগেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, লকডাউনের জন্য কাজ ছেড়ে ভিন রাজ্য থেকে যে সব পরিযায়ী শ্রমিকরা এসেছেন তাদেরকে জব কার্ড দেওয়া হবে। মঙ্গলবার সেই কাজ শুরু হল জেলার আসানসোল মহকুমার সালানপুর থেকে।

এদিন সালানপুর ব্লকের উত্তরামপুর জিৎপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় ভিন রাজ্য থেকে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের হাতে জবকার্ড তুলে দেওয়া হল। ২০ জন পরিযায়ী শ্রমিকদের হাতে জব কার্ড তুলে দেন পঞ্চায়েত প্রধান তাপস চৌধুরী। প্রধান বলেন, যাদের হাতে এদিন জব কার্ড তুলে দেওয়া হল তারা সবাই উত্তরামপুর জিৎপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা। রুজিরুটির টানে এরা সবাই ভিনরাজ্যে কাজে গেছিলেন। লকডাউনের কারণে এরা সবাই সেই কাজ ছেড়ে দিয়ে বাড়ি ফিরে এসেছে।

তাদের হাতে কাজ না থাকায় আর্থিক সংকটের মধ্যে দিন কাটছে। জানা গেছে, যারা ফিরে এসেছেন তাদের মধ্যে কেউ কেউ ফিটারের মতো টেকনিক্যাল কাজ করতেন। বর্তমানে এরা সবাই এখন কর্মহীন।

প্রসঙ্গত, দিন কয়েক আগেই পশ্চিম বর্ধমান জেলা প্রশাসন আগেই বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল যে, লকডাউনে ঘরে ফিরে আসা ইচ্ছুক শ্রমিকদের ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে নিযুক্ত করা হবে। তারজন্য জেলার ৮ টি ব্লকে ৬২ টি পঞ্চায়েত এলাকায় সমীক্ষাও করা হয়। জেলায় পঞ্চায়েত , মৎস্য , সেচ, বনসৃজন সহ বিভিন্ন সরকারি দফতরের সেই কাজের তালিকাও তৈরি করা শুরু হয়েছে। সেইমতো এদিন জব কার্ডও দেওয়া শুরু হল।

উল্লেখ্য, গত ২০ এপ্রিল থেকে রাজ্যে ১০০ দিনের কাজ শুরু হয়েছে। এর মধ্যেই প্রথম কিস্তির টাকা হাতে পেয়ে গিয়েছেন সবাই। লকডাউন ঘোষণার আগে ও পরে যারা গ্রামে ফিরেছেন তাদের অনেকেই এখন ১০০ দিনের কাজে যোগ দিতে চাইছেন। আসানসোলের মহকুমাশাসক দেবজিত গাঙ্গুলি বলেন, কাজে ইচ্ছুকদের জব কার্ড দেওয়া হবে।

আরও জানা গেছে, মহাত্মা গান্ধী জাতীয় কর্ম সুনিশ্চয়তা প্রকল্পে জেলায় মোট ১ লক্ষ ৮৬ হাজার মানুষকে সঙ্গে নিয়ে এই প্রকল্পে কাজ হয়েছে। এর মধ্যে ১৮ লক্ষ ৬০০ দিন কর্মদিবস সুনিশ্চিত হয়েছে। গত অর্থবর্ষে ২৩ কোটি কর্ম দিবস তৈরির লক্ষ্য থাকলেও তা বাড়িয়ে ২৬ কোটি করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close