fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পর্যাপ্ত নম্বর পেয়ে ভর্তি হতে না পারলে গ্রিভান্স সেলে জানান: পার্থ চট্টোপাধ্যায়

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কলেজে আসন সংখ্যার অভাবে নয় বরং কতিপয় কিছু কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের ভর্তি হওয়ার উন্মাদনাই সংশ্লিষ্ট কলেজগুলিতে আসন সংখ্যার অভাব সৃষ্টি করছে। মঙ্গলবার এমনটাই জানিয়েছেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। পাশাপাশি এদিন তিনি পড়ুয়াদের উদ্দেশ্যে আবেদন করে জানান, বাড়ির কাছে অবস্থিত যে কোন কলেজেই যেন তারা সুযোগ পেলে ভর্তি হয়ে যায়।

বিজেপি তরফে বারবার অভিযোগ করে জানানো হয়েছে পড়ুয়ারা কলেজগুলিতে ঠিকমতো আসন সংখ্যা না থাকায় ভর্তি হতে পারছেন না। এই অভিযোগকে সম্পূর্ণ নস্যাৎ করে দিয়ে এদিন পার্থ বাবু জানান, ছাত্র-ছাত্রীদের নাম করা কলেজে ভর্তি হওয়ার প্রবণতাই সেই কলেজগুলিতে আসন সংখ্যার অভাব সৃষ্টি করছে। তার কথায়, “আমি ছাত্র ছাত্রীদের বারবার আবেদন করব তাদের যাতায়াতের সুযোগ সুবিধে রয়েছে এমন কলেজেই যেন তারা ভর্তি হয়। অনেকে অন্য জেলা থেকে এসে পছন্দের কলেজে ভর্তি হবে বলে হোস্টেলে থাকছে। কিন্তু আমাদের সরকার বদ্ধপরিকর যাতে প্রত্যেকে ভাল ভাবে কলেজে ভর্তি হতে পারে সেই বিষয়ে”।

এর পরেই শিক্ষামন্ত্রী জানান, যদি পর্যাপ্ত নম্বর পেয়েও কোন পড়ুয়া কলেজে ভর্তি হতে পারছেন না বা ফর্ম ফিলাপ করেছে তার সত্বেও কোন কলেজে সে ভর্তি হতে পারছে না এমনটা হয়ে থাকে তাহলে সে ক্ষেত্রে তারা যেন রাজ্য সরকারের গ্রিভান্স সেলে যোগাযোগ করেন। সেক্ষেত্রে ওই পড়ুয়াকে কলেজে ভর্তি করে দেওয়ার জন্য সর্বাত্মকভাবে সাহায্য করবে রাজ্য সরকারের গ্রিভান্স সেল।

শিক্ষামন্ত্রী আরো যোগ করে জানান, নতুন করে ৪০ টি বিশ্ববিদ্যালয়, পঞ্চাশটি কলেজ এবং দু’লক্ষ অতিরিক্ত ঘর দেওয়া হয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলিকে পড়ুয়াদের সুবিধার্থে। সেখানে আসন সংখ্যা কম হওয়ায় অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যে বলে দিন দাবি করেন তিনি। পাশাপাশি জানান, এবছর মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকে বিপুল নম্বর পেয়ে পাশ করেছে ছাত্রছাত্রীরা। সেই কারণে প্রত্যেকেই নামকরা কিছু কলেজের পেছনে ছুটছে বলে সর্বোচ্চ নম্বর পারা পরীক্ষার্থীর থেকে যে সামান্য কম নম্বর পেয়েছে সে ভর্তি হতে পারছে না।

অন্যদিকে এদিন পার্থ বাবু সাফ জানান, ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রাজ্য সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এরপরেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলি খুলবে কিনা সে বিষয়ে পরবর্তী পরিস্থিতি দেখে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button
Close