fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

২৮ মে থেকে কলকাতায় ও অণ্ডাল বিমানবন্দরে শুরু হচ্ছে যাত্রীবাহী বিমান পরিষেবা

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সোমবার ২৫ মে থেকেই দেশের অন্য শহর থেকে দেশীয় উড়ান চালুর নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র। কিন্তু করোনা এবং আমফান বিধ্বস্ত বঙ্গে কিছুদিন পরে বিমান চালু করার অনুরোধ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সূত্রের খবর, সেই অনুরোধ মেনেই

বৃহস্পতিবার ২৮ মে কলকাতা এবং অন্ডাল বিমানবন্দর থেকে দেশীয় উড়ান চালু হবে। এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর অনুরোধকে মান্যতা দিল কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক।

কেন্দ্র জানিয়েছে, সারা দেশে যে পরিমাণ বিমান চলে, তার এক তৃতীয়াংশ বিমান চালু করা হচ্ছে। সোমবার মুম্বই থেকে ২৫ জোড়া বিমান ওঠানামা করবে। হায়দরাবাদে ওঠানামা করবে ১৫ জোড়া বিমান। একই ভাবে কলকাতা থেকেও চালু হওয়ার কথা ছিল ৮৫ টি বিমান। বাকিগুলি চলত অণ্ডাল বিমানবন্দর থেকে। কিন্তু ঘূর্ণিঝড় আমফানের তাণ্ডবের পর এখনও লন্ডভন্ড হয়ে রয়েছে কলকাতা৷ জনজীবন স্বাভাবিক করা এবং দুর্গতদের ত্রাণ পৌঁছে দেওয়াকেই এখন অগ্রাধিকার দিচ্ছে রাজ্য সরকার৷ এই পরিস্থিতিতে বিমান পরিষেবা শুরু হলে যে যাত্রীরা কলকাতা বা অণ্ডাল বিমানবন্দরে নামবেন, কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশিকা মেনে তাঁদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা থেকে শুরু করে প্রয়োজনে কোয়ারেন্টাইনে রাখার মতো যাবতীয় বন্দোবস্ত রাজ্যকেই করতে হবে৷

তাই নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকের মাধ্যমে এখনই রাজ্যে বিমান পরিষেবা চালু না করার জন্য কেন্দ্রকে অনুরোধ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ এর পরেই রাজ্যের তরফে অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রকের কাছে সেই আবেদন পৌঁছে দেওয়া হয়েছিল।

আর সমস্ত দাবি মেনে শেষ পর্যন্ত রাজ্যের দাবিতেই সিলমোহর দিল অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক৷ দেশের বাকি অংশে সোমবার থেকেই অভ্যন্তরীণ বিমান পরিষেবা শুরু হলেও পশ্চিমবঙ্গে তা হচ্ছে না৷ সূত্রের খবর, এ রাজ্যে আগামী ২৮ মে থেকে বিমান পরিষেবা শুরু হতে পারে৷ জানা গিয়েছে, ২৮ মে থেকে অন্ডাল থেকে প্রত্যেক দিন একটি উড়ান যাতায়াত যাবে চেন্নাইয়ে এবং অন্য উড়ানটি যাবে মুম্বই।

ওই উড়ানগুলি অণ্ডাল বিমানবন্দরেই ফিরে আসবে। আর কলকাতা থেকে উড়ান যাবে দিল্লি, মুম্বই, চেন্নাই, বেঙ্গালুরু, হায়দরাবাদ-সহ দেশের ছোটবড় সব শহরেই। কলকাতা বিমানবন্দরে ৩০ জুন পর্যন্ত ৮৫ টি উড়ান চলবে। একমাত্র গো-এয়ার ছাড়া বাকি সবক’টি বিমান পরিবহণ সংস্থার উড়ান কলকাতা থেকে চলবে।

কেন্দ্র বলেছে,  যদিও এই বিষয়ে কেন্দ্রের মত মাস্ক ও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে যাত্রীদের। কলকাতার ক্ষেত্রেও কম উড়ান দিয়ে পরিষেবা শুরু হবে। স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে। সমস্ত যাত্রীদের থার্মাল স্কিনিং করা হবে। কোনও যাত্রীর অসুবিধা থাকলে তাকে ভর্তি করা হবে হাসপাতালে। এছাড়া সমস্ত বিমানবন্দর, বাস  এবং বিমানগুলিকেও উপযুক্ত মাত্রায় জীবাণুনাশ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২৫ মার্চ থেকে বন্ধ হওয়ার দীর্ঘ দু’মাস পর সাধারণ যাত্রীদের জন্য খুলছে বিমান পরিষেবা। তবে এখনই সব শহরের মধ্যে যোগাযোগ তৈরি করা হচ্ছে না। মূলত মেট্রো শহরগুলি থাকছে এই যোগাযোগের তালিকায়। এ ছাড়াও বেশ কিছু বড় শহরের সঙ্গে মেট্রো শহরগুলির যোগাযোগও তৈরি হবে। তবে বিমান পরিষেবা চালু হলেও এখনই তা পুরোমাত্রায় হবে না। মাত্র ৩০% শতাংশ বিমান পরিষেবাই চালু করা হবে। ২৫ মে থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ৩৪০টি উড়ান চলবে দেশে। তারপর পরিস্থিতি বুঝে বিমানের সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়ানো হবে।

Related Articles

Back to top button
Close