fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রাজনীতিতে পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী! ডিসেম্বরে ঘোষণা নতুন দলের

ফিরোজ আহমেদ, ভাঙড়: নিজের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে যাবতীয় জল্পনার অবসান করলেন ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী। রবিবার ভাঙড়ের ভরা জনসভায় জানিয়ে দিলেন ডিসেম্বরেই নতুন দল ঘোষণা হবে। দল রাজ্যেঞ ক্ষমতায় আসলে আদিবাসী সম্প্রদায় থেকে মুখ্যমন্ত্রী এবং মুসলিম সম্প্রদায় থেকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হবে বলে ঘোষণা করেন।
২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী দেবে ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর দল। যার মধ্যে উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি সহ বিভিন্ন জেলার একাধিক আসনে প্রার্থী দেবেন তাঁরা। রবিবার ভাঙড়ের চন্ডিপুর ফুটবল ময়দানে সভা করে একথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, “ডিসেম্বর মাসে নতুন দল ঘোষণা হবে। আর জানুয়ারিতে জীবনতলায় লক্ষাধিক মানুষের উপস্থিতে সভা হবে।

“তিনি হুংকার দিয়ে বলেন, “দক্ষিণ ২৪ পরগনায় তৃণমূল কংগ্রেস একটিও আসন পাবে না। আমরা অনেক আসন পাচ্ছি।” এদিন তিনি তৃণমূলের শক্ত ঘাঁটি ভাঙড় ক্যা নিং দখল করার হুঁশিয়ারীও দেন। এভাবেই তৃণমূলকে হুঁশিয়ারি দেন আব্বাস।
আগামীদিনে আব্বাস ভাইজানের দল রাজ্যের ক্ষমতায় আসলে দলিত কিম্বা আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষ রাজ্যেঁর মুখ্যমন্ত্রী হবেন এবং মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হবেন বলে আগেভাগেই ভাঙড়ের জনসভা থেকে জানিয়ে দেন পীরজাদা। এদিন আব্বাসের সভায় ভিড় ছিল দেখার মত। বিশেষ করে অল্প বয়সের তরুণদের ভিড় উপছে পড়েছিল সভাস্থলে।

আরও পড়ুন:বিজেপিতে যোগ দিলেন তিন তালাকের বিরুদ্ধে সর্বপ্রথম আন্দোলনকারী সায়রা বানু

গত ১০ আগস্ট ক্যানিং পূর্ব বিধানসভার অন্তর্গত কাজদিয়া গ্রামে এক দলীয় কর্মীকে দেখতে যাওয়ার পথে স্থানীয় বিধায়ক সওকাত মোল্লার অনুগামীদের হাতে আক্রান্ত হয়েছিলেন আব্বাস। অভিযোগ, সওকাত অনুগামীরা আব্বাসের গাড়ি ভাঙচুর করেছিল।তার জেরে সেদিন আব্বাস অনুগামীরা গোটা রাজ্য জুড়ে ক্ষোভ বিক্ষোভ দেখিয়েছিল। জায়গায় জায়গায় বিক্ষোভ অবরোধে উত্তপ্ত হয়েছিল গোটা রাজ্য। সওকাতের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছিলেন আব্বাস। সেই ঘটনার পরদিন ভাঙড়ে জোড়া সভা করেছিলেন সওকাত। সভা থেকে হুঙ্কার দিয়ে সওকাত বলেছিলেন, ‘দম থাকলে ভোটে দাঁড়াক আব্বাস। ক্যানিং পূর্বে দাঁড়ালে আব্বাসের জমানত জব্দ হবে।‘ এদিন ভোটে দাঁড়ানোর কথা বলে কার্যত সওকাত ও তৃণমূলকে চ্যালেঞ্জ ছুড়লেন আব্বাস।
যদিও রাজনৈতিক বিশেষঞ্জরা মনে করছেন এর পিছনে বিজেপির মদত আছে। আব্বাসের দল ভোটে দাঁড়ালে ধর্মীয় ইস্যুতে ভোট ভাগাভাগিতে সুবিধা হবে পদ্মফুল শিবিরের।

Related Articles

Back to top button
Close