fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তিস্তার ভাঙন আটকে গ্রামকে বাঁচানোর লড়াই মানুষের

বিজয় চন্দ্র বর্মন , মেখলিগঞ্জঃ তিস্তা ফুঁসছে, আর তাতেই ভেঙ্গে পড়ছে তীরবর্তী এলাকা। তিস্তার ভাঙ্গনের হাত থেকে গ্রামকে বাঁচাতে তিস্তা তীরবর্তী মেখলিগঞ্জের নিজতরফের মানুষ এককাট্টা হয়ে হাতে হাত মিলিয়ে গড়ে তুলছে প্রতিরোধ। বাংলাদেশ সীমান্ত ঘেঁষা ৭২ নিজতরফ এলাকায় শুরু হয়েছে তিস্তার ভাঙ্গন। নদীগ্রাসের মুখে সীমান্তের নদী তীরবর্তী গ্রাম। সেই ভাঙনের মুখ থেকে গ্রামকে বাঁচাতে এলাকাবাসী নিজেদের উদ্যোগেই বাঁশ ফেলে, নদীর পাড়ে খুঁটি পুঁতে নানা ভাবে তিস্তা নদীর ভাঙ্গন আটকানোর চেষ্টা করছেন।

 

নদী এমনভাবে ভাঙতে শুরু করেছে তাতে নিরুপায় হয়ে এলাকাবাসী জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নদীতে নেমে পরিস্থিতি মোকাবিলায় ভাঙন রোধের কাজে হাত লাগিয়েছে। তবে এই অঞ্চলে সারাবছর তিস্তার ভাঙ্গন অব্যাহত থাকে। বর্ষায় তা হয়ে ওঠে আরও ভয়াবহ। ভাঙনে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বর্তমানে যেভাবে ভাঙ্গন শুরু হয়েছে তা সরকারি উদ্যোগে আটকানো না গেলে একদিন গোটা গ্রাম জলের তলায় বিলিন হয়ে যাবে। এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ, “যেভাবে ভাঙ্গন শুরু হয়েছে তার হাত থেকে গ্রামকে বাঁচাতে এলাকাবাসী যে প্রচেষ্টা চালাচ্ছে তা যথেষ্ট নয়, সরকারি ভাবে তা উদ্যোগ নেওয়া দরকার। কিন্তু একাধিকবার সমস্যার কথা প্রশাসনকে জানিয়েও কোনওরকম ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না।”

 

বিষয়টি নিয়ে তারা আন্দোলনের পথে হাঁটবেন বলে জানিয়েছেন। এলাকার পঞ্চায়েত সদস্য সুনীল রায় জানান, “মেখলিগঞ্জের ৭২ নিজতরফে নদী ভাঙন ভয়াবহ রুপ নিয়েছে। এতে এলাকার মানুষ আতঙ্কিত হয়ে নিজেরাই ময়দানে নামেন। তিস্তা যেভাবে ভাঙন শুরু করেছে তাতে গোটা এলাকায় পাড় বাঁধ নির্মান করা দরকার।বিষয়টি সংশ্লিষ্ট মহলে জানানো হয়েছে।” এবিষয়ে সেচদপ্তরের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব না হওয়ায় তাদের প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি।

Related Articles

Back to top button
Close