fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা আক্রান্ত কর্মী, বন্ধ পুরসভার  বিল্ডিং উদ্যান ও পেনশন বিভাগ

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা:  ফের করোনা সংক্রমণ কলকাতা পুরসভার অন্দরে। এবারে পুরসভার বিল্ডিং ও উদ্যান ও পেনশন বিভাগে চার কর্মীর দেহে মিলল করোনা সংক্রমণ। এর জেরে ওই বিভাগগুলি বন্ধ রাখা হবে আগামী পাঁচদিনের জন্য। পয়লা আগস্ট ওই বিভাগগুলি জীবানুমুক্ত করে তারপর পুনরায় কাজ শুরু হবে। পুরসভায় একের পর এক ঘটনা আক্রান্তের ঘটনায় ক্ষোভ উগরে দিলেন শ্রমিক-কর্মচারী সংঘের সাধারণ সম্পাদক অশোক সিনহা।

ওই তিন বিভাগের চার কর্মীর দেহের সংক্রমণ মেলার পর থেকেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে দুটি বিভাগ।

সংশ্লিষ্ট বিভাগের বাকি কর্মীদের কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে। কলকাতা পৌরনিগমের একাধিক বিভাগের বহু কর্মী ইতিমধ্যেই করোনাতে আক্রান্ত হয়েছেন।
প্রসঙ্গত কিছুদিন আগেই কলকাতা পুরসভার জন্ম-মৃত্যু শংসাপত্র বিলি বিভাগের এক কর্মী করো না আক্রান্ত হয়ে মারা যান। লাইসেন্স বিভাগের এক কর্মীর দেহেও মিলেছিল সংক্রমণ। এরপর পাঁচ দিনের জন্য লাইসেন্স বিভাগ বন্ধ রাখা হয় গতকাল সোমবার সেই লাইসেন্স বিভাগ জীবাণুমুক্তকরণ এরপর পুনরায় খোলা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে শ্রমিক কর্মচারী সংঘের সাধারণ সম্পাদক অশোক সিনহা বলেন, ‘অফিস চালাতে পুরসভা সম্পূর্ণ ব্যর্থ। অবৈজ্ঞানিক চিন্তাধারা অবলম্বন করে পুরসভার মত দপ্তরকে চালানোর চেষ্টা করছে বিরোধীরা। এর পেছনে শুধুই রাজনৈতিক সুবিধা নেওয়ার লিপ্সা। তাই এই করোনা আবহের মধ্যেই পুরো কর্মীদের এগিয়ে দেওয়া হচ্ছে মৃত্যুর মুখে। আমরা বহুবার স্মারকলিপি দিয়ে একথা জানিয়েছে অবিলম্বে এই প্রথা বন্ধ না করলে মৃত্যু মিছিল শুরু হবে পুরসভায়। বাসের মধ্যেই গাদাগাদি করে আসতে হয় পুরো কর্মীদের। আমরা বারে বারে বলেছি কর্মী সংখ্যা কমিয়ে অল্প লোক দিয়ে কাজ করানো হোক দপ্তর গুলিকে রেগুলার স্যানিটাইজ করা হোক। কারণ ৫০০ মানুষ যদি আক্রান্ত হয় সে ক্ষেত্রে আড়াই হাজার মানুষ নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়বে।’

Related Articles

Back to top button
Close