fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসকে জঙ্গলমহল থেকে উৎখাত করবে মানুষ: ভারতী ঘোষ

সুদর্শন বেরা, ঝাড়গ্রাম: ছত্রধর মাহাতোকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ শানালেন বিজেপি নেত্রী ভারতী ঘোষ। বুধবার ঝাড়গ্রাম জেলার সাঁকরাইল ব্লকের রোহিনীতে বিজেপির উদ্যোগে গণতন্ত্র বাঁচাও কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। ওই কর্মসূচিতে যোগদান করেন বিজেপির রাজ্য কমিটির সহ-সভাপতি ভারতী ঘোষ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বিজেপি দলের ঝাড়গ্রাম জেলা কমিটির সভাপতি সুখময় সৎপথি সাধারণ সম্পাদক অবনী ঘোষ সহ বিজেপি দলের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। ওই অনুষ্ঠানে তৃণমূল কংগ্রেস দল ছেড়ে শতাধিক কর্মী বিজেপি দলে যোগদান করেন। তাদের হাতে বিজেপির পতাকা তুলে দেন বিজেপি নেত্রী ভারতী ঘোষ। এরপর তিনি তার ভাষণে বলেন, ক্ষমতায় আসার আগেই মুখ্যমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল জঙ্গলমহলের উন্নয়ন করবেন। তিনি কি উন্নয়ন করেছেন তা জঙ্গলমহলের মানুষ ভালোভাবেই জানেন। তাই পঞ্চায়েত নির্বাচন ও লোকসভা নির্বাচনে জঙ্গলমহলের মানুষ তৃণমূলকে বিদায় করে দিয়েছে। ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসকে জঙ্গলমহল থেকে উৎখাত করবে জঙ্গলমহলের মানুষ।

তিনি ছত্রধর মাহাতোর নাম করে বলেন, যার জন্য জঙ্গলমহলের সময় অশান্ত হয়েছিল, রক্তের বন্যা বয়েছিল সেই ছত্রধর মাহাতোকে পুলিশ দিয়ে বাড়ি বাড়ি পাঠানো হচ্ছে মানুষকে ভয় দেখানোর জন্য। তিনি সাঁকরাইল ব্লকের প্রতিটি মানুষকে বলেন, আপনারা ছত্রধর মাহাতোকে সাংরইল ব্লকে ঢুকতে দেবেন না। আসলে বাড়ির দরজা বন্ধ করে দেবেন। এক গ্লাস জলও দেবেন না। যে ছত্রধর মাহাতো জঙ্গলমহল জুড়ে অশান্তির বাতাবরণ তৈরি করেছিল। সেই ছত্রধর মাহাতো এখন তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য কমিটির সম্পাদক। তাহলে আপনারা চিন্তা করুন সেই সময় কি ঘটনা ঘটেছিল। ছত্রধর মাহাতো  এখন পুলিশ নিয়ে ঘুরছেন। এই হল তৃণমূল কংগ্রেস। তিনি বলেন, ছত্রধর মাহাতোকে যেমন আপনারা বর্জন করবেন, তেমনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও আপনারা বর্জন করবেন। জঙ্গলমহল বলে পরিচিত ঝাড়গ্রাম জেলার চারটি  বিধানসভা আসনে তৃণমূল কংগ্রেস কে ভোটে পরাজিত করে বিজেপি প্রার্থীদের জয়ী করবেন।

ভারতী ঘোষ বলেন, আপনারা ভয় পাবেন না আপনাদের পাশে আমরা রয়েছি। যখন বিপদে আপদে পড়বেন আপনার ডাকবেন আমি ছুটে আসব। সেই সঙ্গে তিনি বলেন, আপনারা জানেন সেই সময় আমি এই এলাকার পুলিশ সুপার ছিলাম। কিভাবে দিনরাত এক করে জঙ্গলে ছুটে কাজ করেছি। আর সেই ছত্রধর মাহাতো এখন পুলিশ নিয়ে রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। মানুষকে ভয় দেখাচ্ছে। এটা ভাবতে অবাক লাগছে ।তাই বাংলায় গণতন্ত্র নেই বলে তিনি বলেন। তাই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য সকলকে শপথ নিতে হবে। বাংলায় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হবে ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে  বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর এবং বিজেপির ক্ষমতায় আসার পর সোনার বাংলা গড়বে বিজেপি। তাই তিনি সকলকে বিজেপির পাশে থাকার আহ্বান জানান।

 

Related Articles

Back to top button
Close