fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা নিয়ে মানুষের আতঙ্ক দূর করতে বিধায়ক নিজে করোনা পরীক্ষা করালেন

পাপ্পা গুহ, উলুবেড়িয়া: করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিহ্নিত করতে বেশি মাত্রায় র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট এর ওপর জোর দিয়েছে রাজ্য সরকার। ইতিমধ্যে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় এই র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট শুরু হয়েছে। যদিও একশ্রেণীর মানুষের পরীক্ষা করানোর ব্যাপারে আতঙ্ক দেখা দেওয়ায় উলুবেড়িয়া মহকুমায় পরীক্ষার সংখ্যা ক্রমশ কমছে। আর এবার সাধারণ মানুষের মন থেকে করোনা নিয়ে অযথা আতঙ্ক দূর করতে উদ্যোগী হলেন উদয়নারায়নপুরের বিধায়ক সমীর পাঁজা। মঙ্গলবার উদয়নারায়নপুর বিডিও অফিসে বিধায়ক নিজে তার লালারসের নমুনা পরীক্ষা করানো ছাড়াও, এদিন উদয়নারায়নপুর ব্লকের বিডিও, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুলেখা পাঁজা, বিভিন্ন কর্মাধ্যক্ষ, বিভিন্ন পঞ্চায়েতের প্রধান উপপ্রধান, বিডিও অফিসের সমস্ত কর্মচারী এবং উদয়নারায়নপুর থানার পুলিশ কর্মীদের ও লালারসের নমুনা পরীক্ষা করানো হয়।

[আরও পড়ুন- রাজ্যের আবেদন খারিজ, শান্তিনিকেতনে পৌষ মেলার মাঠে পাঁচিলের ওপর স্থগিতাদেশ দিল না কলকাতা হাইকোর্ট]

এদিন বিধায়ক সমীর পাঁজা বলেন, করোনা নিয়ে অযথা মানুষ আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়ছে আর সেই কারণে অ্যান্টিজেন টেস্ট করাতে ভয় পাচ্ছে। মানুষের মন থেকে আতঙ্ক দূর করতে আমি নিজে লালারসের নমুনা পরীক্ষা করানো ছাড়াও সরকারি আধিকারিকদের কর্মচারীদের পরীক্ষা করিয়ে এটা বার্তা দিলাম অযথা আতঙ্কিত যাতে মানুষ না হয়। বিধায়ক বলেন, হারবে করোনা জিতবে বাংলা এই সফরকে সামনে রেখে আমরা সকলকে পরীক্ষা করানোর জন্য আবেদন করছি। পাশাপাশি হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করা ছাড়াও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার আহ্বান জানাচ্ছি।

প্রসঙ্গত জেলা স্বাস্থ্য দফতরের উদ্যোগে বেশ কয়েকমাস আগে উলুবেরিয়া মহাকুমাতে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট পরীক্ষা শুরু করেছে স্বাস্থ্য সফতর। প্রতিদিন গড়ে ৫০০ অ্যান্টিজেন টেস্ট ও ৫০০ লালারসের নমুনা পরীক্ষার লক্ষ্যমাত্রা রাখা হলেও ১৫ আগস্টের পর থেকে এই সংখ্যা ক্রমশ নিম্নমুখী হয়েছে। জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর মানুষ ভাবছে যদি করোন পজিটিভ ধরা পড়ে তাহলে সমস্যা বাড়বে আর সেই কারণে পরীক্ষা করাতে তারা ভয় পাচ্ছে। যদিও বিধায়ক নিজে যেভাবে মঙ্গলবার রাস্তায় নামলেন তাতে মানুষের মনে সাহস যোগাবে।

 

Related Articles

Back to top button
Close