fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

২৬ বছরের কাজ ছ’য় বছরে, অটল টানেলের উদ্বোধনেও কংগ্রেসকে তোপ মোদির

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বের সবচেয়ে বড় টানেলের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ১০ হাজার ফিট উচ্চতায় এই অটল টানেলের উদ্বোধন করেন মোদি। মানালি থেকে লেহকে সংযুক্ত করবে এই টানেল। এই টানেল ব্যবহার করলে মানালি ও লেহ-র মধ্যে দূরত্ব প্রায় ৪৬ কিলোমিটার কমে যাবে বলে জানা গিয়েছে। তার ফলে যাতায়াতের সময়ও চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা কমে যাবে। বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশের মতে, এই টানেল পরিবহণের খরচ কমিয়ে এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে চলেছে।হিমাচল প্রদেশের রোটাং পাসে অটল টানেলের উদ্বোধনে গিয়েও নাম না করে কংগ্রেসকে আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গত ৬ বছরে তাঁর সরকার যে কাজ করেছে তা ২৬ বছর ধরে হয়নি বলেও উল্লেখ করলেন।

রোহতাং এ লম্বা টানেল হওয়ার পরে সেনাবাহিনীর পক্ষে লেহ লাদাখ পৌঁছতে সুবিধা হবে। লেহ মানালি হাইওয়ে সড়কে যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও উন্নত হবে। এই অটল টানেলের উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ছাড়াও দেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং উপস্থিত ছিলেন। এই টানেলের জন্য লেহ থেকে মানালির দূরত্ব ৪৬ কিলোমিটার কম হয়ে গেল। হিমালয়ের পীরপঞ্জল রেঞ্জ এ রোহতাং পাস এর নিচে লেহ মানালি হাইওয়েতে এই টানেল অবস্থিত। মানালি থেকে লেহ পর্যন্ত যাতায়াতের ক্ষেত্রে প্রায় ৪ ঘণ্টা কম সময় লাগবে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারি বাজপেয়ির নামাঙ্কিত এই টানেল এর জন্য লেহ থেকে মানালি পর্যন্ত যাতায়াত সারাবছর অব্যাহত থাকবে।

আরও পড়ুন: ধর্ষক তোকে চিনি…….

অটল টানেল এর উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আজকের দিন ঐতিহাসিক। আজ শুধু অটলজির স্বপ্নই পূরণ হল না, দীর্ঘদিন ধরে থাকা হিমাচল প্রদেশের মানুষদের চাহিদাও পূরণ হল। একদিন এই হিমাচলের মাটিতে অটলজির সামনে বসে আমি আর ধুমলজি যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছিলাম তা বাস্তবায়িত হল। এর ফলে এই এলাকার মানুষের জীবন ও পরিকাঠামোগত উন্নয়ন এখন সময়ের অপেক্ষা। তবে দেশের অন্য প্রকল্পের মতো অটল টানেলের কাজের গতিও প্রচণ্ড ধীরগতিতে চলছিল। ২০১৪ সালের আগে মাত্র ১৩০০ মিটার কাজ হয়েছিল। কিন্তু, তারপর বাকি ৬ বছরের মধ্যে ৯.০৯ কিলোমিটার লম্বা এই টানেলটি সম্পূর্ণ তৈরি করা হয়েছে। দু’বছর আগে অসমে বগিবিল ব্রিজ উদ্বোধন করেছিলাম। এর ফলে আজ উত্তর-পূর্ব ভারতে মানুষরা অত্যন্ত উপকৃত হয়েছে। আশাকরি একই ঘটনা ঘটবে হিমাচলের মানুষদের ক্ষেত্রেও। অটলজি যখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন তখন যে প্রকল্পগুলি শুরু করেছিলেন পরের সরকারের আমলে তার কাজ আটকে যায়। কিন্তু, ২০১৪ সালের পর থেকে পরিস্থিতি বদলে গিয়েছে। গোটা দেশজুড়ে আটকে থাকা প্রকল্পগুলির কাজে গতি এসেছে।’

Related Articles

Back to top button
Close