fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ভাটপাড়ায় তৃণমূল কার্যালয়ে লক্ষ্য করে বোমা দুষ্কৃতীদের, তদন্তে পুলিশ

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: ফের বোমাবাজির ঘটনায় নতুন করে উত্তপ্ত হয়ে উঠল উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়া পৌরসভা এলাকা। এবার বোমা মারা হলো তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যালয় লক্ষ্য করে। বোমা এসে পড়ল তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যালয়ের চিলে কোঠার দেওয়ালে। সোমবার গভীর রাতে চাঞ্চল্য কর এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়া পৌরসভার ১০ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ে। সোমবার রাত ১১ টা নাগাদ একটি বাইকে করে ৩ জন দুষ্কৃতী এসে বোমা ছোড়ে ভাটপাড়া পৌরসভার সুন্দিয়াপাড়া এলাকার তৃণমূল কার্যালয়ে। যেই সময় এই বোমা মারার ঘটনা ঘটে তখন বেশ কয়েকজন দলীয় কর্মী ওই কার্যালয় বসে তাদের দলীয় কাজকর্ম নিয়ে আলোচনা করছিলেন। হঠাৎই প্রচন্ড জোড়ে শব্দ শুনতে পান তারা। সঙ্গে সঙ্গে দলীয় কার্যালয় থেকে বেরিয়ে এসে তৃণমূল কর্মীরা দেখতে পান মুখ ঢাকা অবস্থায় তিন দুষ্কৃতী দ্রুত বাইক চালিয়ে পালিয়ে যাচ্ছে। বোমা ফাটার শব্দে রাস্তায় বেরিয়ে আসেন অন্যান্য প্রতিবেশীরাও। খবর দেওয়া হয় জগদ্দল থানায়। পুলিশ এসে এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

ঘটনা সম্পর্কে বলতে গিয়ে তৃণমূল নেতা জিতেন্দ্র সাউ বলেন, “সাংসদ অর্জুন সিংয়ের গুন্ডা বাহিনী এই ঘটনা ঘটিয়েছে। ওদের কোন কাজ নেই, জনসেবা করে না, মাঝে মাঝেই রাতের বেলায় অর্জুন সিংয়ের আশ্রিত দুষ্কৃতীরা বাইক নিয়ে এসে তৃণমূলের পার্টি অফিস গুলোতে বোমা মেরে পালায়। এলাকায় সন্ত্রাস সৃষ্টি করতেই ওরা এই ঘটনা ঘটিয়েছে । আর এখন ওই গুন্ডাদের কেউ ভয় পায় না। অর্জুন সিংয়ের সঙ্গে এখন ভাল মানুষ কেউ নেই, ওর সঙ্গে এখন দুষ্কৃতীরা আছে ।”

বিজেপির বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করা হলেও বিজেপির পক্ষ থেকে গোটা ঘটনার অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। সাংসদ অর্জুন সিংয়ের দাবি, তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলের ফলে এই ঘটনা ঘটেছে। কাটমানি খাওয়া নিয়ে ওদের দলের অন্দরে দ্বন্দ শুরু হয়েছে । এই বোমা মারার ঘটনার সাথে বিজেপি কোন ভাবেই জড়িত নয়।” পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত শুরু করলেও এখনো পর্যন্ত কেউ গ্রেপ্তার হয় নি। এই বোমাবাজির ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভাটপাড়া পৌরসভা এলাকায় নতুন করে রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close