fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বর্ধমানে বৃদ্ধ খুনের ঘটনায় আততায়ীর খোঁজে তদন্তে পুলিশ

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: বর্ধমানের তেজগঞ্জ হাইস্কুল পাড়ায় বৃদ্ধ খুনের ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার নিজের বাড়িতেই রহস্যজনকভাবে খুন হন গোরাচাঁদ দত্ত নামে (৮৪) এক বৃদ্ধ। খবর পেয়ে বর্ধমান থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বৃদ্ধের গলার নলিকাটা মৃতদেহ উদ্ধার করে।

মৃতের স্ত্রী মীরা দত্ত জানিয়েছেন, তাঁর ছেলে পরিবার নিয়ে দুর্গাপুরে থাকে। মেয়ে জামাইও থাকে বাইরে। সেই কারণে তেজগঞ্জের বাড়িতে তিনি ও তাঁর স্বামী গোরাচাদবাবুই থাকেন। মীরাদেবী বলেন, ভগ্নীপতির সঙ্গে দেখা করার জন্য এদিন সকালে তিনি বাড়ি থেকে বের হন। সেই কারণে তাঁর স্বামী বাড়িতে একাই ছিলেন।এদিন বিকাল ৪ টে নাগাদ তাঁর ভগ্নীপতি তাঁকে তেজগঞ্জের বাড়ির সামনে নামিয়ে চলে যান। বাড়িতে ঢুকতে গিয়েই তিনি দেখেন বাড়ির গেট খোলা রয়েছে।

আরও পড়ুন:বিশ্বের সংঘাতপূর্ণ এলাকায় যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব পাস করেছে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদ

মীরাদেবী আরও জানান, তিনি মনে করেছিলেন হয়তো বিকল হয়ে যাওয়ায় বাড়ির টিভি সারানোর জন্য মিস্ত্রি বাড়িতে এসেছে। এরপরে বাড়ির ভেতর ঢোকার সময়ে তিনি দেখেন হলুদ গেঞ্জি পরা এক অপরিচিত যুবক ঘর থেকে বেরিয়ে আসছে। তখন ওই যুবকে তিনি জিজ্ঞাসা করেন কি হয়েছে ? ওই যুবক তখন তাঁকে জানায় ভেতরে গিয়ে দেখুন। এরপর ঘরে ঢুকেই তিনি দেখেন ঘরের ভিতরে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে তাঁর স্বামী গোরাচাঁদবাবুর রক্তাক্ত মৃতদেহ।

মীরাদেবীর বাড়ির কাছেই থাকেন তাঁর ভাইঝি সুপর্ণা সেনগুপ্ত।তিনি এদিন বলেন, মীরাদেবী মাঝে মধ্যেই আত্মীয়র বাড়ি যেতেন। তখন গোরাচাঁদবাবু বাড়িতে একাই থাকতেন। তবে গোরাচাঁদবাবু কখনই অপরিচিত কাউকে বাড়িতে ঢুকতে দিতেন না।

আরও পড়ুন:করোনা মোকাবিলায় শহরে চালু ‘কোভিড কেয়ার নেটওয়ার্ক’, থাকছেন চিকিৎসক-করোনাজয়ী-বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বরা

সুপর্ণাদেবী আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন, হয়তো চুরির উদ্দেশ্যেই কেউ গোরাচাঁদবাবুর ঘরে ঢুকেছিল। চুরিতে বাধা পেয়েই আততায়ীরা গোরাচাঁদবাবুকে খুন করে পালিয়েছে। তবে এই খুনের ঘটনার পিছনে পরিচিত কেউ জড়িত রয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখছেন বর্ধমান থানার পুলিশ কর্তারা ।

Related Articles

Back to top button
Close