fbpx
কলকাতাহেডলাইন

রূপান্তরকামী ও তাঁর বন্ধুকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ পুলিশ অফিসারের বিরুদ্ধেই, সহকর্মীকেই গ্রেফতার পুলিশের

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা:  গাড়ি পার্কিং নিয়ে সমস্যার জেরে খোদ পুলিশ অফিসারের হাতেই এভাবে হেনস্থা হতে হবে, তা ভাবতেও পারেননি নির্যাতিতা রূপান্তরকামী ও তাঁর বান্ধবী। সোমবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ের ওপরে চাঁদনি চকের কাছে একটি রেস্তোরাঁর সামনে। ঘটনার প্রতিবাদ করে নিগৃহীত হতে হয় তাদের গাড়ি চালককেও। সোমবার রাতেই তারা বউবাজার থানায় ওই পুলিশ অফিসারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। মঙ্গলবার বিকেলের মধ্যেই অভিযুক্ত কলকাতা ট্রাফিক পুলিশের অ্যাডিশনাল ওসি অভিজিৎ ভট্টাচার্যকে মঙ্গলবার বিকেলের মধ্যেই গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত শুরু হয়েছে।

নিজের অভিযোগে ওই রূপান্তরকামী জানিয়েছেন, তিনি পশ্চিমবঙ্গ রূপান্তরকামী উন্নয়ন পর্ষদের সদস্যা। তিনি এবং তার বান্ধবী সোমবার রাত ৮টা নাগাদ দমদম এলাকায় ত্রাণ দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। বউবাজার থানা এলাকায় চাঁদনি চকের কাছে একটি রেস্তোরাঁয় কফি খেতে গাড়ি দাঁড় করান। কিন্তু গাড়ির ভুল পার্কিংয়ে দাঁড় করানো হয়েছে এই দাবি করে
তখনই তাঁদের গাড়ির উপর চড়াও হন কলকাতা পুলিসের ওই অফিসার। অভিযোগ, তখনই গাড়ির খোলা কাঁচ দিয়ে ওই রূপান্তরকামী মহিলা ও তার বান্ধবীর গায়ে অশ্লীলভাবে একাধিকবার হাত দেন ।

 

অভিযোগ, গাড়ি চালক বাধা দিতে গেলে তাঁকে মারধর করে হাতও ভেঙে দেয় অভিযুক্ত পুলিশ অফিসার। এমনকি অভিযুক্ত অফিসার গাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে চুমুও ছুৃঁড়তে থাকেন। সেই ছবি ক্যামেরাবন্দি করে তারা পরে তুলে দেন বউ বাজার থানার পুলিশ অফিসারদের হাতে।

 

এদিকে এই পুলিশি অভব্যতার শিকার হয়ে ১০০ ডায়াল করে লালবাজারে অভিযোগ জানান নির্যাতিতা রূপান্তরকামী। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে বউবাজার থানার পুলিশ কর্মীরা। তাদের থেকেই নির্যাতিতারা ওই পুলিশকর্মীর পরিচয় জানতে পারেন। এরপর তারা বউবাজার থানায় গিয়ে অভিযুক্ত পুলিশকর্মী বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ২৪ ঘন্টার মধ্যেই গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্ত পুলিশ অফিসারকে।

Related Articles

Back to top button
Close