fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ হুমায়ুন কবির নামে পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে, করা হয় খুনের চেষ্টাও

মিল্টন পাল, মালদা: পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল এক পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে। তার শ্বশুর পেশায় পুলিশকর্মী। নাম হুমায়ুন কবির। বর্তমানে সে মুর্শিদাবাদ জেলার বড়ুঞা থানা কর্মরত। ওই গৃহবধূর বাড়ি মালদার মোথাবাড়ি থানা এলাকায়। পুলিশ অভিযোগ না নেওয়ায় এবার মালদার পুলিশ সুপার, বীরভূম পুলিশ সুপার ও আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন ওই গৃহবধূ। মালদার মোথাবাড়ি বাসিন্দা ওই যুবতীর অভিযোগ, ২০১৭ সাল নাগাদ হায়দ্রাবাদের সিদ্ধার্থ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে তিনি বি-টেক পড়তে গিয়েছিলেন। সেই সময় বীরভূম জেলার নলহাটি এলাকার নজরুল-পল্লীর বাসিন্দা ওয়াহিদুর রহমানের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপর তারা মুসলিম বিবাহ মতে বিয়ে করেন। কিন্তু তার গায়ের রং কালো হওয়ায় ও গরীব পরিবার থেকে আসার কারণে তার শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তাকে মেনে নিতে পারছিল না।

জানা গিয়েছে, তাকে বেশ কয়েকবার ধর্ষণ করে হুমায়ুন। সেইসঙ্গে তার শাশুড়ি মনোয়ারা বেগম তার ওপর শারীরিক নির্যাতন চালাত। এমনকি তার বাচ্চাও নষ্ট করে দেয় বলে অভিযোগ। আরও চাঞ্চল্যকর অভিযোগ, কেবল হুমায়ুন কবির নয়, তার দেওর মিজানুর রহমানও তার ওপর যৌন নির্যাতন চালাতো। তিনি তার স্বামী ওয়াহিদুর রহমানকে সমস্ত ঘটনা জানালেও বাইরের কারও কাছে মুখ খুলতে পারেননি তিনি।

গত কয়েক মাস আগে তার স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তাকে খুন করার চেষ্টা করে। কোনওরকমে ওই যুবতী প্রাণ বাঁচিয়ে সেখান থেকে পালালে নলহাটি থানায় অভিযোগ জানাতে যান। কিন্তু পুলিশ অভিযোগ নেয় নি। তাই বাধ্য হয়ে তিনি তার বাপের বাড়ি মালদার মোথাবাড়ি পটলডাঙায় ফিরে আসেন। এরপর আইনজীবী মারফত মালদা জেলার পুলিশ সুপার বীরভূমের পুলিশ সুপার ও আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি।

Related Articles

Back to top button
Close