fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

প্রচেষ্টা প্রকল্পের পত্র জমা দেওয়া ঘিরে ধুন্ধুমার, বিক্ষোভকারীদের ওপর লাঠিচার্জ পুলিশের

বর্ণালী রায়, দক্ষিণ দিনাজপুরঃ প্রচেষ্টা প্রকল্পের আবেদন পত্র জমা দেওয়া ঘিরে বালুরঘাটের বিডিও অফিসে তুমুল বিক্ষোভ আবেদনকারীদের, বিক্ষোভকারীদের হঠাতে পুলিশের মৃদু লাঠিচার্জ।

সোমবার সকাল হতেই বালুরঘাটের ট্যাংক মোড় এলাকার বালুরঘাটের সমষ্টি উন্নয়ণ আধিকারিকের অফিসে প্রচেষ্টা প্রকল্পের ফর্ম জমা দিতে উপস্থিত হন প্রচুর সংখ্যক সাধারণ মানুষ। অভিযোগ, এরপর বিডিও অফিসে ফর্ম জমা দিতে গেলে বিডিও অফিসের গেট নাকি বন্ধ করে দেওয়া হয়। যার পরেই ফর্ম জমা দিতে না পেরে বিক্ষোভ শুরু করেন প্রচেষ্টা প্রকল্পের ফর্ম জমা দিতে আসা সাধারণ মানুষরা। এর কিছুক্ষণ পরে ফর্ম জমা নেওয়া শুরু হলেও প্রচেষ্টা প্রকল্পের ফর্ম জমা দেওয়ার রিসিভ হিসাবে কোনও কাগজ না মেলায় বালুরঘাটের বিডিও অফিস চত্বরে ফের বিক্ষোভ শুরু করেন ফর্ম জমা দিতে আসা সাধারণ মানুষরা।

বিক্ষোভের খবর পেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এদিন বিশাল পুলিশ বাহিনী বালুরঘাটের বিডিও অফিস চত্বরে পৌছায়। এরই মাঝে বালুরঘাটের বিডিও অফিস কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে অফিসের বাইরের দেওয়ালে আঠা দিয়ে সাটিয়ে পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত প্রচেষ্টা প্রকল্পের আবেদনপত্র জমা স্থগিত রাখার বিজ্ঞপ্তি লাগিয়ে দেওয়া হয় এবং একই সঙ্গে মাইক লাগিয়ে শুরু হয় সেই বিজ্ঞপ্তির ঘোষণা।

যদিও এদিন বালুরঘাটের বিডিও অনুজ সিকদার প্রচেষ্টা প্রকল্পের ফর্ম জমা নেওয়ার বিষয়টি পুরোপুরি অস্বীকার করে বলেন এখানে অনেকেই প্রচেষ্টা বিষয়ে তথ্যাদি নিতে এসেছিল। একই সঙ্গে তিনি জানান, প্রচেষ্টা প্রকল্পের আবেদনপত্র জমা নেওয়া পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত স্থগিত রাখা হল। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন এটা আমাদের কাছে জানা ছিল না এবং সেটা আমরা জানিয়ে দিয়েছি।

তিনি আরও বলেন ওরা লক ডাউন পিরিয়ড চলে গেলে এবং কোভিড-১৯ পরবর্তী সময়ে স্যার যেভাবে আমাদের বলবেন সেই বিজ্ঞপ্তি দিয়ে আমরা তখন বলব নিজেরা এসে উনারা তখন জমা করতে পারবেন। এর কিছুক্ষণ পরেই ফর্ম জমা দেওয়া বেশ কিছু সাধারণ মানুষ এদিন বিক্ষোভ দেখানোর পাশাপাশি অভিযোগ করে বলতে শুরু করেন তাহলে তারা যে বিনা রিসিভ কপি নিয়ে ফর্ম জমা দিয়েছেন সেই ফর্মগুলির কি হবে। বিক্ষোভকারীদের পক্ষে পাগলিগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা রঞ্জিত মাহাতো অভিযোগ করে বলেন প্রচেষ্টা প্রকল্পের জন্য ফর্ম জমা দিতে এসেছিল জনগণ কিন্তু হঠাৎ করে নোটিশ লাগিয়ে দেওয়া হল জনসাধারণের জন্য ফর্ম জমা নেওয়া হবে না কিন্তু বিডিও কোন সিল বা কোন কিছু নেই, বিডিও বলছে আমিই সরকারি প্রশাসন-আমিই চালাই, এটা কোন ধরনের নোংরামো বলে এদিন প্রশ্ন তোলেন রঞ্জিত মাহাতো। তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন আপনারা জমা দিন তারপর জমা দিলে উনি রিসিভ দিচ্ছেন না, জমা দেওয়ার পরে উনি তো আগুনে বা জলে ফেলে দিতে পারেন তাহলে আমরা টাকাটা পাব কি করে প্রচেষ্টা প্রকল্পের। এর কিছুক্ষণের মধ্যে পুলিশ লাঠিচার্জ করে এবং বিক্ষোভকারীদের মধ্যে রঞ্জিত মাহাতো-কে টেনে হিচড়ে বিডিও অফিসের ভিতরে নিয়ে গিয়ে আটক করে।

অপরদিকে পুলিশের মৃদু লাঠিচার্জে বিডিও অফিস এলাকা থেকে রীতিমত আতঙ্কিত হয়ে রাস্তার দু-দিকে ছুটতে থাকে সাধারণ মানুষরা। ঘটনার পরে এদিন ফর্ম জমা দিতে আসা একাধিক সাধারণ মানুষ বালুরঘাটের বিডিও-র বিরুদ্ধে দুর্ব্যবহার করার অভিযোগ তুলে সরব হয়েছেন এবং একই সঙ্গে রঞ্জিত মাহাতোকে তাদের কথা বলার জন্য আটক করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এদিনের এই ঘটনা বালুরঘাট শহরে চাউড় হওয়ার পর বালুরঘাট শহরের একাধিক মানুষের বক্তব্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জ্জী যখন গরিব মানুষদের জন্য দিনরাত এক করে কাজ করে চলেছেন তখন বালুরঘাটের বিডিও-র এধরনের ব্যবহার জনমানসে রাজ্য সরকারের প্রতি গরিব মানুষদের মনে বিরুপ ধারনা তৈরী করবে।

Related Articles

Back to top button
Close