fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

লকডাউনে ব‍্যারাকপুরে মদের আসরে পুলিশের হানা, গ্ৰেফতার ১০

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর : লকডাউন সফল করতে বুধবার অতি সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে দেখা গেল উত্তর ২৪ পরগনার ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের জগদ্দল থানার পুলিশকে। রাজ্য সরকারের নির্দেশে বুধবার সম্পূর্ণ লকডাউন পালন হল রাজ্য জুড়ে। লকডাউন কার্যকর করার রাজ্য সরকারের নির্দেশকে বুড়ো আঙুল দেখাচ্ছিল যারা এবার তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে জগদ্দল থানার পুলিশ সাদা পোশাকে দিনভর হানাদারি চালাল। এদিন পুলিশ জগদ্দল, শ্যামনগর, আতপুর, ব্যারাকপুর কল্যাণী এক্সপ্রেসওয়ে, ঘোষপাড়া রোড, শ্যামনগর ফিডার রোডের আনাচে কানাচে হানা দেয়। অন্তত ১০ জনকে পুলিশ লকডাউন ভাঙার অপরাধে গ্ৰেফতার করেছে এদিন।

জগদ্দল থানার অন্তর্গত শ্যামনগর ঘোষ পাড়া রোডে মাংসের দোকান খুলে দেদার বিক্রি করছিলেন এক মাংস বিক্রেতা । সাদা পোশাকের জগদ্দল থানার পুলিশ আচমকা হানা দেয় তার দোকানে। গ্ৰেফতার করা হয় ওই মাংস বিক্রেতাকে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সাদা পোশাকে জগদ্দল থানার পুলিশ ব্যারাকপুর কল্যাণী এক্সপ্রেসওয়ের বাসুদেবপুর মোড়ে হানা দেয়। সেখানে চায়ের দোকান খুলে মদের আসর বসিয়েছে কিছু যুবক । সঙ্গে সঙ্গে শ্যামনগর ফিডার রোড দিয়ে পুলিশ পৌঁছে যায় বাসুদেব পুর মোড়ে ওই চায়ের দোকানে। পুলিশকে লাঠি হাতে গাড়ি থেকে নামতে দেখেই মদ্যপ যুবকরা মদের বোতল ফেলেই চম্পট দেয়। মদের বোতল উদ্ধার করে ভাঙচুর করে পুলিশ কর্মীরা।

সাদা পোশাকে থাকা পুলিশ কর্মীরা রাস্তায় যাকেই দেখেছে মাস্ক না পরে বাইরে বেরিয়েছে তাকেই সাবধান করেছে। অযথা ঘোরাঘুরি যারা করছিল তাদের পুলিশ ধাওয়া করে বাড়িতে ফেরত পাঠিয়ে দিয়েছে। এদিকে বুধবার দুপুরে জগদ্দল থানার পুলিশ খবর পায় স্থানীয় একটি পুকুর পাড়ে জমায়েত করে মাছ ধরছেন কিছু আড্ডাবাজ। পুলিশ হানা দেয় সেই পুকুর পাড়ে। লাঠি হাতে তেড়ে যেতেই ছিপ ফেলে পালায় আড্ডাবাজদের দল।

উল্লেখ্য, করোনা মোকাবিলায় লকডাউন ছাড়া বিকল্প কোন পথ খোলা নেই প্রশাসনের সামনে। রাজ্য সরকারের নির্দেশে প্রত্যেক সপ্তাহে লকডাউন কার্যকর করার নির্দেশ জারি হয়েছে। সেই নির্দেশ মত এবার অতি সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে দেখা গেল উত্তর ২৪ পরগনার ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের জগদ্দল থানার পুলিশকে।

পুলিশ সূত্রের খবর, লকডাউন ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে এভাবেই আচমকা হানাদারি চলবে আগামীদিনে। যারা সরকারি নির্দেশ অমান্য করবে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button
Close