fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তেতে উঠেছে শিলিগুড়ি ও জলপাইগুড়ি, উত্তরকন্যায় যাওয়ার সময়ে দিলীপ-মুকুলের গাড়ি আটকাল পুলিশ

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: নির্বাচন আগে বঙ্গ রাজনীতিতে উত্তেজনার পারদ চড়ছে। একদিকে মেদিনীপুরে সভা করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্যদিকে  তৃণমূল নেত্রীর জনসভার পাল্টা কর্মসূচি হিসেবে উত্তরকন্যায় থাকছে বিজেপি। যুব মোর্চার কর্মসূচি হলেও এদিন উপস্থিত থাকবেন রাজ্য বিজেপির প্রথম সারির নেতারা। এদিন বিজেপি-র উত্তরকন্যা অভিযানের শুরুতেই বাধার মুখে পড়লেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ। আটকানো হয় সায়ন্তন বসু-সহ অন্য বিজেপি নেতাদেরও। বাধা দেওয়া হয় আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বার্লাকে।

সোমবার মেদিনীপুরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনসভার দিনেই উত্তরকন্যা অভিযান বিজেপি নেতৃত্বর। বিজেপির যুব মোর্চা কর্মসূচির ডাক দিলেও এখানে রয়েছেন রাজ্য বিজেপির প্রথম সারির নেতারা। সোমবার সকালে উত্তরকন্যার কাছে এনএইচপিসি-র বাংলো থেকে বেরোতেই দিলীপ-সায়ন্তনকে আটকানো হয় বলে অভিযোগ। সে সময় বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে পুলিশের বচসা হয় বলে বিজেপি নেতৃত্বের দাবি। বিজেপির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাস বিজয়বর্গীয় সোমবার সকালে বলেন, ”পুলিশ যতই চেষ্টা করুক, আমাদের কর্মীদের আটকাতে পারবে না।”

সকাল থেকেই তেতে উঠেছে শিলিগুড়ি ও জলপাইগুড়ির বিভিন্ন এলাকা। বিজেপি কর্মী সমর্থকদের রুখতে সকাল থেকেই তত্‍পর পুলিশ। পাশাপাশি অভিযানে অংশ নিতে মরিয়া বিজেপির কর্মী সমর্থকরাও। বাগডোগরা গোঁসাইপুরে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের বাস আটকে দেয় পুলিশ। দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে ওই বাসে করে অভিযোনে অংশ নিতে এসেছিলেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। বাস আটকে দেওয়ায় রাস্তায় নেমে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তাঁরা। পরে পুলিশ গিয়ে তাদের তুলে দেয়।

জলপাইগুড়ির বিজেপির জেলা সভাপতি বাপি গোস্বামীর অভিযোগ, উত্তরবঙ্গে বিভিন্ন জেলা থেকে তাঁদের কর্মী সমর্থকদের নিয়ে আসা বাস শহরে ঢুকতে দিচ্ছে না পুলিশ। যত্রতত্র গাড়ি দাঁড় করিয়ে নামিয়ে দেওয়া হচ্ছে তাদের কর্মী সমর্থকদের। বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে গাড়ির মুখ ঘুরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তবে তিনি বলেন, পুলিশ আটকানোর চেষ্টা করলে আমাদের কোনওভাবেই রোখা যাবে না। কর্মসূচি সফল করতে যতদূর যেতে হয় ততদূরই যাব।”

আরও পড়ুন: ২০২১-এ বাংলার শাসন ক্ষমতায় আসছে বিজেপি : জগন্নাথ সরকার

বিজেপির যুব মোর্চার এই অভিযান কর্মসূচির জন্য ব্যাপক পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। জায়গায় জায়গায় ব্যারিকেড করা হয়েছে। বিজেপির অভিযোগ, বহু জায়গায় পুলিশ তাঁদের আটকাচ্ছে। এই কর্মসূচিতে যোগদান করতে যাওয়ার পথে নাগরাকাটা ভানু মোড় এলাকায় সাংসদ জন-সহ বিজেপি কর্মীদের আটকায় মালবাজারের সিআই আশিস থাপার নেতৃত্বাধীন পুলিশ।

সেই ছবি সাংবাদিকরা তুলতে গেলে আশিস সাংবাদিকদের বাধা দেন এবং দুর্ব্যবহার করেন বলে অভিযোগ। পরে অবশ্য সাংসদ ও বিজেপি কর্মীদের ছেড়ে দেওয়া হয়। সোমবার বিজেপি-র এই কর্মসূচির জন্য এবং জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার জেলার বিভিন্ন রাস্তায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন এলাকা থেকে সকাল থেকেই বিজেপি-র কর্মী সমর্থকেরা ওই অভিযানে সামিল হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close