fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ভিড় ঠেকাতে লাঠি হাতে পুলিশ

মিল্টন পাল, মালদা: লকডাউনের প্রথম দিনই লাঠি হাতে দাপিয়ে বেরালো পুলিশ।  মালদার ইংরেজবাজার পুরো এলাকায় বুধবার সকাল থেকেই প্রতিটি বাজারে উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়। এরপর পুলিশ লাঠি হাতে পথে নামলে শহর কার্যত নিমিষেই ফাঁকা হয়ে যায়। অন্যদিকে পুরাতন মালদা ভিড় কমাতে বেশ কিছু জায়গায় পুলিশকে লাঠিচার্জ করতে হয়।

সম্প্রতি করোনা মোকাবেলায় কর্তব্যরত চিকিৎসক আধিকারিক ও পুলিশের বেশ কয়েকজন কর্মী আক্রান্ত হয়। যদিও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের চিকিৎসা ব্যবস্থা ইতিমধ্যেই করা হয়েছে। জেলায় হু হু করে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। সেই দিকে নজর রেখেই জরুরী ভিত্তিতে জেলা প্রশাসন বৈঠক ডাকে। করোনা মোকাবেলায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি চিঠি রাজ্য সরকারকে পাঠানো হয়। এরপরই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় সবজি বাজার ও  অত্যাবশ্যকীয় জিনিসপত্রের বাজার বেলা ১১ টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। বাকি সমস্ত দোকানপাট বন্ধ থাকবে।

[আরও পড়ুন- বসিরহাট ট্রাফিক পুলিশের উদ্যোগে পালিত হল “সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ” কর্মসূচী]

এমনকি শহরের মধ্যে টোটো, অটো, রিক্সা কোনও কিছুই চলবে না। এদিন বেলা ১১ টার পর ইংরেজবাজারও পুরাতন মালদা পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় পুলিশ হানা দিতে শুরু করে। শহরের বাসিন্দা রাজীব দত্ত জানান, কিভাবে জেলায় হু হু করে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তাতে এই লকডাউন একান্তই প্রয়োজন। করোনা মোকাবিলায় সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। প্রশাসন যা সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাকে আমরা স্বাগত জানাই।

মালদা মার্চেন্ট চেম্বার অব কমার্সের সম্পাদক জয়ন্ত কুন্ডু বলেন, মানুষকে বাঁচাতে করোনা মোকাবেলায় আমরা সর্বতভাবে সাহায্য করব। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সমস্ত বাজার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সমস্ত বিষয় নিয়ে বাজার কমিটির সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে। পুরাতন মালদা পৌরসভার প্রশাসক কার্তিক ঘোষ বলেন, করোনা মোকাবিলার জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। করোনা মোকাবিলায় মানুষকে আরও সচেতন হতে হবে। তা না হলে আগামী দিনে আরও ভয়ঙ্কর আকার নেবে করোনা।

Related Articles

Back to top button
Close