fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূল ও বিজেপি দলের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল দিনহাটার ভেটাগুড়ি

নিজস্ব সংবাদদাতা দিনহাটা: তৃণমূল ও বিজেপির কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল দিনহাটার ভেটাগুড়ির ব্রহ্মাণ্ডেরচৌকি এলাকা। সোমবার রাতে দিনহাটা এক ব্লকের ভেটাগুড়ি দুই গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ওই গ্রামে উভয় দলের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় আহত হয় চার জন। আহত বিজেপি কর্মী বিপুল মজুমদার দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আহত তৃণমূল কর্মী তাপস বর্মন কে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়। এই ঘটনায় উভয় পক্ষই অভিযোগ দায়ের করে দিনহাটা থানায় । পুলিশ ইতিমধ্যে ২ জনকে গ্রেফতার করেছে বলেও জানা গেছে।

গত পঞ্চায়েত ভোটের সময় থেকেই দিনহাটার ভেটাগুড়িতে  রাজনৈতিক সংঘর্ষ লেগেই রয়েছে। সোমবার রাতে ও উভয় পক্ষই অভিযোগ করেন বাড়ি ফেরার পথে তাদের উপরে আক্রমণের ঘটনা ঘটে। ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত বিজেপি কর্মী বিপুল মজুমদার বলেন,”সোমবার সন্ধ্যায় ভেটাগুড়ি বাজারে দলের একটি মিছিল হয়। মিছিল শেষে বাড়ি ফেরার পথে তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরা তাদের বেশ কয়েকজনের উপরে হামলা চালায়। তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসে।”

বিজেপির মন্ডল সভাপতি মলয় রায় মন্ডল বলেন,”তৃণমূল বুঝে গেছে আগামী নির্বাচনে তারা ক্ষমতায় আসতে পারবে না। তাই বিজেপি কর্মীদের ওপর নানা ভাবে আক্রমণ করা হচ্ছে। গোটা ঘটনা পুলিশকে জানানো হয়েছে।”

অন্যদিকে আহত তৃণমূল কর্মী তাপস বর্মন বলেন,”দলের বুথ সভাপতির বাড়িতে বসে সাংগঠনিক বিভিন্ন আলোচনার পাশাপাশি গ্রামে সকলকে একশ দিনের কাজ দেওয়ার জন্য লিস্ট হচ্ছিল। সে কাজ শেষের পর তারা বাড়ি যাওয়ার পথে পরিকল্পিতভাবে বিজেপি কর্মীরা তাদের ওপর অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। সে আঘাত তার উপরে আসে। বিধানসভা ভোটের আগে নানাভাবে সন্ত্রাস শুরু করেছে বিজেপি।”

ঘটনায় দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত বলেন,”এই ঘটনায় দুই পক্ষের অভিযোগ জমা পড়েছে।ইতিমধ্যে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। এলাকায় পুলিশের রুট মার্চ হয়। ফলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।”

Related Articles

Back to top button
Close