fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা মুক্তির পর যক্ষ্মা পরীক্ষা এবার থেকে বাধ্যতামূলক, ঘোষণা স্বাস্থ্য দফতরের

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: করোনা মুক্তির পরেও বহু মানুষের মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে একাধিক শারীরিক উপসর্গের তথ্য সামনে এসেছে চিকিৎসকদের। যেহেতু করোনার শ্বাসকষ্টের কারণে মানুষের ফুসফুসের ওপর চাপ পড়ে, সেই কারণে রোগীর আগে থেকেই যক্ষা থাকলে মৃত্যুর সম্ভাবনা আরও অনেকটাই বেড়ে যায়। আবার করোনা থাকাকালীন রোগীর যক্ষা আছে কি না, তা বোঝাও সম্ভব নয়। তাই করোনা মুক্তির পর অবশ্যই রোগীর যক্ষা আছে কি না, তার পরীক্ষা করানোর এবার নির্দেশিকা জারি করল স্বাস্থ্য দফতর।

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশিকায় স্পষ্ট জানানো হয়েছে, এবার থেকে করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট আসার ৭ – ২১ দিনের মধ্যে সরকারি ব্যবস্থায় বিনামূল্যে যক্ষ্মা পরীক্ষা করাতেই হবে। না হলে তার বাড়িতে নোটিশ পাঠানো হবে।
এখনো পর্যন্ত করোনা মুক্ত হওয়ার পর অন্তত ১৪৩ জন রোগীর দেহে যক্ষ্মা সংক্রমণ মিলেছে। আর তার সঙ্গে অন্তত ২০২৪ জনের দেহে যক্ষ্মার লক্ষ্মণ দেখা গিয়েছে। তাদের ইতিমধ্যে বিশেষ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। যক্ষার কারণে যাতে করোনা রোগীর মৃত্যু না হয়, তার জন্য এই বিশেষ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা স্বাস্থ্য দফতরের।

চিকিৎসকদের দাবি, করোনা ও যক্ষ্মা একসঙ্গে হলে লক্ষ্মণ দেখে যক্ষ্মাকে চিহ্নিত করা প্রায় অসম্ভব। করোনা সেরে গেলেও যক্ষ্মা থেকে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে যক্ষ্মা চিহ্নিত করে সেই রোগীদের প্রতি বিশেষ নজর না দিলে সম্পূর্ণ সুস্থ হওয়ার আগেই ফের করোনার শ্বাসকষ্টে মৃত্যু হবে। সেই কারণে স্বাস্থ্য দফতরে করোনার মুক্তির পর যক্ষা পরীক্ষা করতে বলা হয়েছিল। এরকম অনুরোধ এসেছিল একাধিক চিকিৎসক সংগঠনের পক্ষ থেকেও। সেই দাবিই যুক্তিসঙ্গত মনে করে এবার মেনে নিল স্বাস্থ্যভবন।

Related Articles

Back to top button
Close