fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ধর্ষণে অভিযুক্ত প্রাক্তন তৃণমূল নেতার বিভিন্ন দেওয়ালে ছবি সহ পোস্টার, চাঞ্চল্য দিনহাটায়

নিজস্ব সংবাদদাতা, দিনহাটা: ধর্ষণ কাণ্ডে অভিযুক্ত তৃণমূলের দিনহাটা ১ ব্লক এর প্রাক্তন সভাপতি তথা জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ নুর আলম হোসেনকে দল থেকে বহিষ্কারের করা হয়েছে। তারপরেও তার ছবি সহ পোস্টার দিনহাটা শহরের বিভিন্ন এলাকায় টানিয়ে দেওয়ার ঘটনায় ব্যাপক আলোড়ন ছড়িয়ে পড়ল। শনিবার দিনহাটা শহরের ডাকবাংলো পাড়ায় মহকুমা শাসকের বাংলো অনন্যার মূল গেটের সামনে ছাড়াও গোপালনগর এলাকা সহ বিভিন্ন স্থানে এই ব্যানার লাগানো হয়। পোস্টার লাগানোর পাশাপাশি অভিযুক্ত তৃণমূল নেতার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করা হয়। এই ঘটনায় শাসকদলের অন্দরেও ব্যাপক চর্চা শুরু হয়। পোস্টার লাগানোর ঘন্টা কয়েক পরেই কে বা কারা সেই পোস্টারগুলো খুলে দেয় বলেও জানা গেছে। শিক্ষিকা ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে সরব হওয়ার পাশাপাশি প্রশাসন এরপরেও কি নীরব থাকবে তা নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়েছে ব্যানারে।

শহরের একাধিক স্থানে পোস্টার লাগানো হল সেই পোস্টারের কোন কোনটাতে সিতাই কেন্দ্রের বিধায়ক জগদীশ বসুনিয়া, গীতালদহ ১ গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান আবুয়াল আজাদের ছবিও রয়েছে নুর আলম হোসেনের দুই পাশে। দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের থেকেই বহিস্কৃত নেতার ছবি সহ পোস্টার শহরের বিভিন্ন এলাকায় লাগিয়ে বিভ্রান্ত ছড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে বলেও দলীয় সূত্রে জানা গেছে। কে বা কারা ব্যানার লাগিয়েছে তা জানা যায়নি। তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর অন্তর্দ্বন্দ্বে আলম বিরোধী গোষ্ঠির কর্মী-সমর্থকরাই এই ব্যানার লাগিয়েছ বলে মনে করছেন অনেকে।

তৃণমূল কংগ্রেসের সিতাই বিধানসভা কার্যকরী কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক প্রসন্ন দেবশর্মা , কমিটির অন্যতম সদস্য গীতালদহ এক গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান আবুয়াল আজাদ , মোশারফ হোসেন প্রমুখ বলেন, ধর্ষণকাণ্ডে নুর আলম হোসেন কে দল থেকে বহিষ্কার করেছে জেলা নেতৃত্ব। সুতরাং বহিস্কৃত ওই নেতা দলের কেউ নন। তার বিরুদ্ধে কারা পোস্টার লাগিয়েছে তার সাথে দলের কোনো সম্পর্ক নেই।

বিজেপির কোচবিহার জেলা সম্পাদক সুদেব কর্মকার বলেন, নানা রকম দুর্নীতিতে ভরে গেছে তৃণমূল। আর সেই দলের উঁচু থেকে নিচু অধিকাংশ নেতাই তার সাথে জড়িত। তৃণমূলে কে কার বিরুদ্ধে লড়াই করে টিকে থাকবে সেই প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে।

এদিকে সিতাই বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক জগদীশ চন্দ্র বর্মা বসুনিয়া জানান, ধর্ষণকাণ্ডে নুর আলম হোসেন হাইকোর্ট থেকে জামিন পেয়েছেন। তাকে হাইকোর্ট জামিন দেওয়ায় তিনি সাধারণ মানুষের মত ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এখানে তাদের কিছু বলা নেই। যারা এটা করছে তাদের নুর আলম সম্পর্কে কী ধারণা আছে সেটা তার জানা নেই। বিচারে তার কি হবে সে ক্ষেত্রে আইন আছে আদালত আছে।

দিনহাটা মহকুমা শাসক শেখ আনসার আহমেদ বলেন, সরকারি বাংলোর গেটে পোস্টার লাগানোর বিষয়টি পুলিশকে অবগত করা হচ্ছে। দিনহাটা মহকুমা পুলিশ আধিকারিক মানবেন্দ্র দাস বলেন, এ নিয়ে কোন অভিযোগ তাদের কাছে নেই। অভিযোগ এলে অবশ্যই তা খতিয়ে দেখা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close