fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ব্যবসায়ী সংগঠনের উদ্যোগে ২৫ টাকা কেজি দরে আলু বিক্রি শুরু

শান্তনু চট্টোপাধ্যায়, রায়গঞ্জ: করোনা সংক্রমণের আবহে বাজারে সব্জীর দাম আকাশছোঁয়া। এমনিতেই লকডাউনের কারনে অনেক মানুষের উপার্জন বন্ধ হয়ে গিয়েছে, স্বাভাবিক কারনেই প্রতিদিনের বাজার করতে গিয়ে নাভিশ্বাস উঠেছে সাধারণ মানুষের। সব্জীর কথা না হয় বাদই দিন,আলুসেদ্ধ-ভাতের জোগাড় করে ওঠাটাও অনেকক্ষেত্রে সম্ভব হচ্ছে না। বর্তমান বাজারে আলুর দাম ঘোরাফেরা করছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকার মধ্যে।

এই পরিস্থিতিতে সাধারন মানুষকে স্বস্তি দিতে এগিয়ে এলো রায়গঞ্জ মার্চেন্টস এ্যাসোসিয়েশন। সোমবার থেকে সংগঠনের উদ্যোগে রায়গঞ্জে শুরু হলো ভ্রাম্যমাণ আলু বিক্রয় কেন্দ্রের। এই গাড়ি থেকে ২৫ টাকা কেজি দরে আলু কিনতে পারবেন শহরবাসী।
উল্লেখ্য লকডাউন, প্রাক বর্ষা, আমফান সহ বিভিন্ন কারনে সব্জির দাম উর্ধ্বমুখী। তবে আলুর দাম কিছুটা স্বস্তিতে রেখেছিলো মানুষকে। আলু দিয়ে রকমারী পদ না হলেও দুবেলা খাওয়ার কাজটা অনেক সহজ। কিন্তু সেই আলুতে হাত দেওয়া যাচ্ছে না। ১৮-২০ টাকার আলু এখন বাজারে বিক্রি হচ্ছে ত্রিশ-পঁয়ত্রিশ টাকায়। বিভিন্ন বাজারে টাস্ক ফোর্স আলুর দাম নিয়ন্ত্রনে অভিযান চালালেও খুব একটা লাভ হয় নি। এবারে সাধারন মানুষের সুরাহায় পঁচিশ টাকা কেজি দরে আলু বিক্রির সিদ্ধান্ত নিলো রায়গঞ্জ মার্চেন্টস এ্যাসোসিয়েশন। সোমবার শহরের মোহনবাটী তে অবস্থিত সংগঠনের কার্যালয়ে থেকে আলু বিক্রির জন্য ভ্রাম্যমান গাড়িটির উদ্বোধন হয়।

 

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অতনু বন্ধু লাহিড়ী বলেন,” আলুর দাম বেড়ে যাওয়ায় সমস্যায় পড়েছেন সাধারন মানুষ। সে কারনেই পঁচিশ টাকা কেজি দরে আলু বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। শহরের বিভিন্ন প্রান্তে ভ্রাম্যমাণ গাড়িটি যাবে। শহরবাসী এখান থেকে বাজারদরের চাইতে কমমূল্যে আলু কিনতে পারবে। আগামী দিনগুলিতেও এই পরিষেবা চালিয়ে যাবো আমরা।” রায়গঞ্জ মার্চেন্টস এ্যাসোসিয়েশনের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে সাধারন মানুষ। তাদের বক্তব্য” রান্নাঘরে আলু থাকলে খাওয়ার খুব একটা সমস্যা হয় না। কিন্তু দাম বেড়ে যাওয়ায় সমস্যায় পড়তে হচ্ছিল। পঁচিশ টাকায় আলু বিক্রি হওয়ায় গরীব মানুষ উপকৃত হবেন।

Related Articles

Back to top button
Close