fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রাস্তার পাশে পরে রয়েছে পিপিই কিট! আতঙ্কে গ্রামবাসীরা

জয়দেব লাহা, দুর্গাপুর, ২ জুন: এলাকায় কোভিড-১৯ হাসপাতাল। রাস্তায় যত্রতত্র পড়ে পিপিই কিট। হাওয়া উড়ছে। কখন কুকুরে টানা হ্যাঁচড়া করছে। করোনা সংক্রামকের আতঙ্কে গ্রামবাসীরা। অভিযোগ, উঠেছে পিপিই কিট ব্যাবহারকারীদের চুড়ান্ত গাফিলাতির দিকে। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে কাঁকসার মলানদীঘি এলাকায়।

প্রসঙ্গত, বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসের দাপট। ভারতেও হু হু করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এরাজ্যের দক্ষিনবঙ্গে কাঁকসার মলানদীঘিতে এক বেসরকারী হাসপাতালকে কোভিড-১৯ হাসপাতাল করা হয়েছে। চলছে চিকিৎসাও। মঙ্গলবার প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে যে, ৫৭ জন কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা চলছে। ২ নং জাতীয় সড়ক থেকে শিবপুর রোডের ওপর ওই হাসপাতাল। প্রায় দিনই রোগী ভর্তি গাড়ীর আনাগোনা চলছে।

গত কয়েকদিন ধরে রূপগঞ্জ, কুলডিহা এলাকায় রাস্তার পাশে যত্রতত্র পড়ে রয়েছে পিপিই কিট। কখনও হাওয়া উড়ে রাস্তার চলে আসছে। আবার কখনও কুকুরে টানা হ্যাঁচড়া করছে ওইসব পিপিই কিট। আর তাতেই আতঙ্কে ঘুম ছুটছে আশপাশের গ্রামবাসীদের।

অভিযোগ, ওইসব পিপিই হয়তো কোন রোগীর হতে পারে। কিম্বা রোগী নিয়ে যাওয়া অ্যাম্বুলেন্স চালকের। ব্যবহারের পর রাস্তার পাশে ফেলে দিয়েছে। কোনওভাবে গ্রামের কিম্বা পথচলতি মানুষের সংস্পর্শে আসলে সংক্রমকের আশঙ্কা রয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান,” প্রশাসনের নজরদারি দরকার, রাস্তার পাশে পড়ে থাকা ওইসব পিপিই পুড়িয়ে ফেলার দাবী জানাচ্ছি।”

উল্লেখ্য, মাসখানেক আগে রাস্তার পাশে হাসপাতালের ব্যবহার্য মাস্ক, গ্লাভস, পিপিই কোভিড হাসপাতালের রাস্তার পাশে ফেলার প্রতিবাদে সরব হয়েছিল গ্রামবাসীরা। স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়িতে বিক্ষোভও দেখিয়েছিল। তারপর আবারও এই ঘটনায় ক্ষোভ ফুঁসছে গ্রামবাসীরা।

যদিও এবিষয়ে মলানদীঘি পঞ্চায়েত প্রধান পিযুষ মুখোপাধ্যায় জানান,” আমার কাছে কোন অভিযোগ আসেনি। তবুও খোঁজ নিয়ে দেখছি। প্রশাসনের নজরে আনা হবে বিষয়টি। রাস্তার পাশ থেকে পড়ে থাকা পিপিই পোড়ানোর ব্যবস্থা করা হবে।”

Related Articles

Back to top button
Close