fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে খুনের অভিযোগে গ্রেফতার স্বামী ও শ্বশুর

নিজস্ব প্রতিনিধি, রামনগর (পূর্ব মেদিনীপুর): অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ উঠলো শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের বিরুদ্ধে। মৃতার গৃহবধূর বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে স্বামী ও শ্বশুরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুরের রামনগর থানার উত্তর কানপুর গ্রামে।

মঙ্গলবার রাতে রামনগর থানার পুলিশ স্বামী দিলীপ দাস ও শ্বশুর বসন্ত দাসকে গ্রেফতার করার পর বুধবার দুজনকে কাঁথি মহাকুমা আদালতে তোলা হয়। বিচারক মৃতার স্বামী দিলীপ দাসকে চার দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন।   শ্বশুর বসন্ত দাসকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন।

যদিও শ্বশুরবাড়ি দাবি তারা বধূকে কোন ভাবে খুন করেননি। বাড়িতে অসুস্থ হয়ে পড়লে উদ্ধার করে রামনগরে বড়রাঙ্ককুয়া গ্রামীন হাসপাতাল নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষনা করেন। রামনগর থানা পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে কাঁথি মহাকুমা হাসপাতালে ময়নাতদন্তে পাঠায়।

 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে যে, গত এক বছর আগে রামনগরের মালিকাবাসান গ্রামের রামচন্দ্র রায়ের মেয়ে তাপসীর সঙ্গে উত্তর কানপুর গ্রামের বাসিন্দা বসন্ত দাসের ছেলে দিলীপের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় যথেষ্ট দান সামগ্রী দিয়ে দিয়েছিল বলে মেয়ের বাপের বাড়ির দাবি। এর মধ্যেই তাপসীদেবী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন।

রামনগর থানার এক পুলিশ আধিকারিক বলেন, মৃতদেহটি উদ্ধার করে কাঁথি মহাকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে এলেই মৃত্যুর প্রকৃত কারন জানা যাবে। গৃহবধূর বাপের বাড়ির অভিযোগের ভিত্তিতে স্বামী ও শ্বশুরকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close