fbpx
অসমগুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

বাংলার পর এবার অসম, আগামী ৩০ নভেম্বর অবধি আতসবাজি পোড়ানো ও বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা জারি

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  বাংলার পর এবার অসম রাজ্য। ১০ নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত আতসবাজি বিক্রি এবং পোড়ানোর ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি হল।  আসন্ন কালীপুজো-দীপাবলির পরিপ্রেক্ষিতেই অসমে বাজিপটকা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে ন্যাশনাল গ্রিন ট্রাইবুনাল দীপাবলি উৎসবে আতসবাজি ব্যবহার না করার নির্দেশ দিয়েছে। সেই নির্দেশ পালন করেই অসম সরকার এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। একদিকে মহামারি করোনাকাল! সঙ্গে শীত পড়ছে একটু একটু করে। বাড়ছে শ্বাসকষ্টের মতো সমস্যাগুলি। এই কোভিড সংক্রমণের সময় দূষণ সৃষ্টি না করার উদ্দেশে অসম সরকার গুয়াহাটিসহ গোটা রাজ্যে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত আতসবাজি বিক্রি এবং ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

            আরও পড়ুন: ইসলামের সমালোচনা করায় পাকিস্তানে খুন খ্রিস্টান মা ও ছেলে

দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের উদ্ধৃতি দিয়ে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে প্রশাসন অসমবাসীকে দীপাবলির দিন রাত ৮ টা থেকে ১০ টা পর্যন্ত দূষণ সৃষ্টি না করা তথা দড়িবাজি, কম ডেসিবেলের ক্র্যাকার, রকেট, চরকি, কাগজ বোমা, ইত্যাদি ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়েছে। তবে শুধু দীপাবলি নয়, ছট পুজো, ক্রিসমাস এবং ইংরেজি নববর্ষের জন্যেও অসম সরকার নির্দেশনা জারি করেছে।  ছট পুজোর সময়ও অসমে পটাকার ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ক্রিস্টমাস এবং নববর্ষে সরকার মাত্র ৩৫ মিনিটের জন্যে পটাকা ফাটানোর অনুমতি প্রদান করেছিল।

অসম সরকারের বনমন্ত্রী পরিমল শুক্লবৈদ্য আগে দীপাবলির সময় অসমে আতসবাজি পোড়ানোর ক্ষেত্রে কোনধরনের বাধা থাকবে না বলে মন্তব্য করেছিলেন। অসমের আগে দিল্লি, রাজস্থান, মহারাষ্ট্র, ওড়িশা ইত্যাদি রাজ্যে দীপাবলির উৎসবে আতসবাজি ব্যবহার এবং বিক্রি নিষিদ্ধ করেছে।

 

Related Articles

Back to top button
Close