fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনায় মৃতদেহ দাহ করা নিয়ে নির্মল ঝিল শ্মশানে জারি হল বিধিনিষেধ

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: করোনার থাবায় এবার মৃতদেহ সৎকারে বিধিনিষেধ জারি হল বর্ধমানের নির্মলঝিল শ্মশানে। রীতিমত বিজ্ঞপ্তি জারি করে বিধিনিষেধ সংক্রান্ত নির্দেশিকা স্পষ্ট করে দিয়েছে বর্ধমান পৌরসভা। নির্দেশিকা অনুযায়ী এখন থেকে আর নির্মল ঝিল শ্মশানে রাত ১০ টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত কোন সাধারণ মৃতদেহ সৎকার করা যাবেনা। বর্ধমান পৌরসভার সচিব জয়রঞ্জন সেন জানিয়েছেন , এখন রাত ১০ টা থেকে ভোর ৫ টা পর্যন্ত নির্মল ঝিল শ্মশানে শুধুমাত্র করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত ব্যক্তিয় দেহ সৎকার করা হবে। সেই কারণে ওই সময়ে নির্মল ঝিল শ্মশানে অন্য কোন মৃতদেহ সৎকার করতে দেওয়া হবে না।

প্রতিদিনই পূর্ব বর্ধমান জেলায় লাফিয়ে লাফায়ে বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। মৃতর সংখ্যাও পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে। বুধবার একদিনে জেলার ৫৩ জন বাসিন্দার করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে । গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় দু’জন কোভিড আক্রান্তের মৃত্যুও হয়েছে। এদিন পর্যন্ত জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১৬৯ জন । তার মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৭ জনের ।বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সারি ওয়ার্ড ও বর্ধমানের বেসরকারী কোভিড হাসপাতালে কোন করোনা আক্রান্ত রুগীর মৃত্যু হলে মৃতদেহ সরকারী নিয়ম মেনে পরিবারের দেওয়া হচ্ছে না ।পুলিশ প্রশাসন ও পৌরসভা ওই মৃতদেহ দাহ করাচ্ছে বর্ধমানের নির্মলঝিল শ্মশানে।

পৌরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে , জনবহুল
বর্ধমান পৌরসভার ২১ নম্বর ওয়ার্ডে রয়েছে নির্মল ঝিল শ্মশান। সেখানে দুটি চুল্লির মধ্যে গ্যাস চুল্লিটি দীর্ঘ দিন বিকল হয়ে পড়ে রয়েছে । ফলে দিনের বেলায় নির্মল ঝিল শ্মশানে অন্য মৃতদেহ দাহ করার চাপ থাকে। এছাড়াও প্রতি সপ্তাহের শুক্রবার বর্ধমান হাসপাতাল পুলিশ মর্গে জমে থাকা অজ্ঞাত পরিচয়ের মৃতদেহ এই শ্মশানেই দাহ করা হয় । সার্বিক এই পরিস্থিতি বিচার করে প্রশাসন ও পৌরসভা করোনায় মৃতদের দেহ নির্মল ঝিল শ্মশানে রাতে দাহ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে । তাই বিজ্ঞপ্তি জারি করে এই সিদ্ধান্তের বিষয়টি পৌরসভা জনসমক্ষে আনলো।

Related Articles

Back to top button
Close