fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মদের দোকান বন্ধের দাবিতে এসইউসিআইয়ের ছাত্র-যুব-মহিলা সংগঠনের বিক্ষোভ

শান্তনু অধিকারী, সবং: লকডাউনের মধ্যেই দেশজুড়ে মদের দোকান খুলেছে। দোকানে দোকানে ভিড় জমেছে সুরাপ্রেমীদের। শিকেয় উঠেছে সামাজিক দূরত্ব বিধি। ফলে ব্যহত হতে পারে করোনার মোকাবিলায় যাবতীয় প্রয়াস। সেইসঙ্গে নেশার কবলে পড়ে এই বিপর্যয়ের কালে সর্বশান্ত হতে পারে অভাবী মানুষজন। এইসকল উদ্বেগকে সামনে রেখে, দেশজুড়ে মদের দোকান বন্ধের দাবিতে পথে নামল এসইউসিআইয়ের ছাত্র-যুব-মহিলা সংগঠন। এদিন এ উপলক্ষে সংগঠনের সদস্যরা সবং থানাতে বিক্ষোভ দেখান ও স্মারকলিপিও জমা দেন।

এদিনের বিক্ষোভ কর্মসূচিতে সংগঠনের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন চন্দনা মান্না, সুব্রত ঘোড়াই, গণেশ বেরা, সাবানা বানু প্রমুখরা। দেশের কোশাগার ভরতে মদের দোকান খোলার সরকারি সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সকলেই এদিন ক্ষোভে ফেটে পড়েন। সকলেই জানালেন, যখন প্রতিদিনই করোনা সংক্রমণ বেড়ে চলেছে দেশজুড়ে, অসংখ্য মানুষ আশঙ্কায় দিন কাটাচ্ছেন, তখন মদের দোকান খোলার সরকারি অনুমতি শুধু নিন্দনীয় নয়, অত্যন্ত অন্যায়ও।

আরও পড়ুন: পরিযায়ীদের ঘরে ফেরাতে গিয়ে হেনস্তার শিকার হলেন সরকারি বাস চালকরা

এরফলে করোনা সংক্রমণের সম্ভাবনা বাড়ছে। বাড়ছে পারিবারিক অশান্তি ও নারীনির্যাতনের ঘটনার আশঙ্কা। পথদুর্ঘটনার আশঙ্কা উড়িয়ে দিচ্ছেন না বিক্ষোভকারীরা। সর্বোপরি, যখন সাধারণ মানুষের হাতে অর্থের জোগান কম, তখন তাঁরা মদের দোকানে লাইন দিচ্ছেন। যৎসামান্য উপার্জন তাঁরা খরচ করে ফেলছেন মদের নেশায়। ফলে অবিলম্বে সরকারি এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি তুলেছেন তাঁরা। এদিন বিক্ষোভকারীরা মদের দোকান বন্ধের দাবি তুলেছেন। সেইসঙ্গে এলাকার সমস্ত অবৈধ মদের উৎপাদন ও কারবার বন্ধে পুলিশি হস্তক্ষেপূর দাবি তুলেছেন তাঁরা। একইসঙ্গে প্রশাসনকে অনুরোধ করেছেন, লকডাউন যাতে কঠোরভাবে মেনে চলা হয়, সেদিকে নজর দেওয়ার জন্য। এদিন এসইউসিআইয়ের এই তিন সংগঠনের বিক্ষোভ ঘিরে সাধারণ মানুষেরও উৎসাহ ছিল দেখার মতো।

Related Articles

Back to top button
Close