fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূল নেতার দোকান ভাঙচুরকে কেন্দ্র করে প্রকাশ্যে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব

পরিমল দে, বসিরহাট: রাতের অন্ধকারে ভাঙচুর করা হয় তৃণমূল নেতার মিষ্টির দোকান। ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাত থেকে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে হাসনাবাদের ভেবিয়া এলাকায়। এই উঠে আসে পোস্টটি বন্ধের অভিযোগ। হাসনাবাদের ভেবিয়া এলাকার তৃণমূল নেতা তথা জেলার প্রাক্তন সম্পাদক শুভেন্দু পাল এর দোকানে ভাঙচুর চালানো হয় বৃহস্পতিবার রাতে। দোকানের আসবাবপত্র ভাঙচুর থেকে শুরু করে খাদ্য সামগ্রী নষ্ট করার পাশাপাশি ভাঙচুর চালানো হয় দোকানের সিসিটিভি ক্যামেরা ও কম্পিউটার।

তৃণমূল নেতা সুরেন্দ্রনাথ পালের অবর্তমানে সশস্ত্র দুষ্কৃতীরা দোকানে হামলা চালায় বলে অভিযোগ তুলে তিনি জানান, কাল রাতে
আমি মুরারিশা যাওয়ার সময় শুনতে পাই কিছু দুষ্কৃতী আগ্নেয়াস্ত্র ও বোমা নিয়ে এসে আমার দোকানে হামলা করে দোকানদার জিনিষপত্র ভাঙচুর চালায়। আমাকে খোঁজ করছিল ওই দুষ্কৃতীরা সামনে পেলে হয়তো আমাকে মার্ডার করত। হাসনাবাদের সিপিএম থেকে আসা হার্মাদ ফিরোজ কামাল গাজী ওরফে বাবু মাস্টার তার লোকেদের দিয়ে এখানে সমস্ত জায়গায় অশান্তি সৃষ্টি করছে। আমাদের দলের কোনো উচ্চ নেতার হাত ওর মাথার উপর আছে বলে এই ঘটনাগুলো করার সাহস পাচ্ছে।

 আরও পড়ুন: আমফানের ‘দুর্নীতি’, এবার মুখ্যমন্ত্রীর নজরে প্রশাসনিক আধিকারিকরা

তৃণমূল নেতার দোকান ভাঙচুরের পিছনে উত্তর ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের শিক্ষা কর্মদক্ষ ফিরোজ কামাল গাজী নাম যুক্ত থাকার বিষয় নিয়ে কথা বললে ফিরোজ কামাল গাজী জানান, সুরেন্দ্রনাথ পাল ডাকনাম গুড্ডু সেখানে বেশ কিছুদিন ধরেই অনৈতিক কাজ কর্ম করে চলেছে। এলাকার উন্নয়নকে চায়না ওরা। পঞ্চায়েত সদস্য পঞ্চায়েত প্রধান এদের কোনও গুরুত্ব না দিয়ে নিজের ক্ষমতা দেখানোর চেষ্টা করেন। কয়েকদিন আগেই মুরারিসাহ পঞ্চায়েতের এক পঞ্চায়েত সদস্য আবু সায়ীদকে মারধর করে গুড্ডুর লোকেরা। আর সেই কারণেই ক্ষিপ্ত হয়ে সাধারণ মানুষের গতকাল রাতে ওর দোকানে হামলা চালায়। তারপরই গুড্ডুর নেতৃত্বে হামলা চালানো হয় আমাদের পরিষদীয় দলনেতা রামপ্রসাদ বরকন্দাজের বাড়িতে।

Related Articles

Back to top button
Close