fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূলের কর্মিসভায় প্রকাশ্যে গোষ্ঠী কোন্দল

মিল্টন পাল, মালদা: তৃণমূলের কর্মিসভায় প্রকাশ্যে এল তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল। সভায় উপস্থিত নেই রাজ্যের প্রাপ্ত মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী সহ তৃণমূল নেতৃত্বের একাংশ। কৃষ্ণেন্দুবাবু একজন স্বঘোষিত নেতা দলকে ভালোবাসে না। দলকে ভালোবাসলে তিনি দলীয় বৈঠকে আসতেন। অভিযোগ করলেন তৃণমূলের মালদা জেলার কো-অর্ডিনেটর দুলাল সরকার। এরা দলকে ভাঙিয়ে ব্যবসা করেন অভিযোগ ইংরেজবাজার টাউন তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি নরেন্দ্রনাথ তিওয়ারির।

রবিবার মালদা টাউন হলে ছিল তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মিসভা। এই সভার মূল উদেশ্য যে সমস্ত এলাকায় সভা হবে সেই এলাকার বরিষ্ঠ নেতা ও দলের সঙ্গে যুক্তদের সন্মান জানানো। সেই মত এদিন ইংরেজবাজারে বৈঠক ডাকা হয়। সেখানে জেলা প্রথম সারির নেতাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়। সেখানে দেখা যায় তৃণমূলের অন্দরে গোষ্ঠী কোন্দল থাকার কারণে এদিন মঞ্চে দেখা মেলেনি রাজ্যের দুই প্রাক্তন মন্ত্রীর। আর এই নিয়ে শুরু হয়েছে বির্তক।
পাল্টা কৃষ্ণেন্দুবাবু বলেন আমি নেতা নই। আমি একজন কর্মী। পুরসভা চালিয়ে নিজের শ্রীবৃদ্ধি করিনি। কেউ আমাকে নেতা বানাইনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমাকে নেতা বানিয়েছে।প্রকাশ্যেই মঞ্চে দলীয় নেতাদের বিরুদ্ধে সরব হলেন দলের স্পোকসম্যান সুমালা আগরওয়ালা ও মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি চৈতালি ঘোষ সরকার। রবিবার মালদা টাউন হলে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মিসভা ঘিরে প্রকাশ্যে এই গোষ্ঠী কোন্দল নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন ছড়িয়েছে।

আরও পড়ুন: আমেরিকার ঐতিহাসিক দিন… ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা হ্যারিস, গর্বিত ভারত

গত ১০_১১ বছর ধরেই তৃণমূলের লাগাতার গোষ্ঠী কোন্দল চলছে এটা দোলনা প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি তা বোঝা মুশকিল এমনই দাবি বিজেপির মালদা জেলা সভাপতি অজয় গঙ্গোপাধ্যায়ের। অন্যদিকে তৃণমূলের জেলা কোঅর্ডিনেটর দুলাল সরকার বলেন, জেলার সমস্ত নেতাদের কর্মিসভায় ডাকা হয়েছিল। তবে কি কারণে আসেনি জানা নেই। কারও ব্যাক্তিগত কাজ থাকতেই পারে।

Related Articles

Back to top button
Close