অন্যান্যঅফবিটকলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কোয়ারেন্টাইনে নীল অ্যাপ্রনে কর্তব্যে অবিচল আই সি স্বরূপ কান্তি পাহাড়ি

ফিরোজ আহমেদ, ভাঙড়: করোনা ভাইরাস ঘিরে মানুষের মধ্যে ক্রমশ আতঙ্ক বাড়ছে। সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে মানুষ আজ গৃহবন্দি। কেন্দ্র ও রাজ্যের লকডাউনের নির্দেশ মেনে বেশিরভাগ মানুষ সেই আদেশ মেনে চলেছে। কিন্তু এই অবস্থার মধ্যে কিছু মানুষ তাদের কর্তব্যে অবিচল। কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে অ্যাপ্রন পরে কর্তব্যে অবিচল কলকাতা পুলিশের আধিকারিক।

কলকাতা লেদার কমপ্লেক্স থানার আই সি স্বরূপ কান্তি পাহাড়ি। এখন মৃত্যু ভয়কে উপেক্ষা করেই স্বরূপবাবু ডিউটি করে চলেছেন কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে। সেখানকার নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন তিনি। করোনা ভাইরাস প্রতিহত করতে এখন স্বরূপবাবু ফ্রন্ট লাইনে। অন্য ভূমিকায়। তাঁর পোশাক পাল্টে গেছে। তিনি সারাক্ষণ চিকিৎসকের পোশাকেই ডিউটি করছেন। মাথায় টুপি, গায়ে পুলিশের সাদা পোশাকের ওপর নীল অ্যাপ্রন পরে রয়েছেন তিনি। সেইসঙ্গে হাতে গ্লাভস ও মুখে মাস্ক। দেখলে মনে হবে কোনও চিকিৎসক। নতুবা চিকিৎসা কর্মী। আসলে তিনি পুলিশ আধিকারিক।

আরও পড়ুন: প্রয়াত প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী ও স্থপতি সতীশ গুজরাল

বর্তমানে তিনি কলকাতা লেদার কমপ্লেক্স থানার অন্তর্গত কোচপুকুর এলাকার কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে সারাদিন ধরে কাজ করছেন। সারাক্ষণই রয়েছেন সেখানে।

চিত্তরঞ্জন ক্যান্সার ইন্সিটিউটের নতুন ভবন তৈরি হয়েছে নিউটাউন এ্যক্সায়া এরিয়া ওয়ানের মধ্যে। যদিও সেই ভবনটি ভাঙড়ের কলকাতা লেদার কমপ্লেক্স থানার অধীনে পড়েছে।
বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারণে সেখানে তৈরি করা হয়েছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার। দুদিন আগেই এই কোয়ারেন্টাইন সেন্টার পরিদর্শনে গিয়েছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তখনও কলকাতা পুলিশের আধিকারিক স্বরুপ কান্তি পাহাড়ি নীল অ্যাপ্রন মুখ্যমন্ত্রীর সামনে দাঁড়িয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী তাকে কুর্ণিশ জানান এবং সচেতন থেকে কাজ করার পরামর্শ দেন।

আরও পড়ুন: বাড়ছে সংক্রমণ, রাজস্থানে মৃত্যু করোনা আক্রান্তের 

কলকাতা ঘেঁষা নিউটাউনে চিত্তরঞ্জন ক্যান্সার হাসপাতালের দ্বিতীয় ক্যাম্পাস তৈরি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের অধীন এই হাসপাতালে ক্যান্সার চিকিৎসার অত্যাধুনিক সব সুযোগ সুবিধা থাকছে। ১০০০ কোটি টাকা ব্যায়ে এই হাসপাতাল নির্মিত হয়েছে। ৭৫০টি শয্যা থাকার কথা।এই হাসপাতালের উদ্বোধন করার কথা ছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। এখন হাসপাতাল চালু না হলেও করোনা সন্দেহদের কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করা হয়েছে সেখানে। আর ফ্রন্ট লাইনে থেকে তার গুরু দায়িত্ব সামলাচ্ছেন পুলিশ আধিকারিক স্বরূপ কান্তি পাহাড়ি।

এ বিষয়ে পাহাড়ি সাহেব বলেন, “করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক মানুষের মধ্যে গ্রাস করেছে তবুও থানার সমস্ত পুলিশ কর্মী আতঙ্ক কে দূরে সরিয়ে কর্তব্যে অবিচল।” তিনি আরও বলেন, “আমাদের পুলিশ কর্মীরা মানুষকে সচেতন করার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে দিনরাত কাজ করছে।”

Related Articles

Back to top button
Close