fbpx
আন্তর্জাতিকএকনজরে আজকের যুগশঙ্খগুরুত্বপূর্ণবাংলাদেশহেডলাইন

কোরানের অবমাননার অভিযোগে বাংলাদেশের ৮ জেলায় ২০ মণ্ডপে মৌলবাদী হামলা ও ভাঙচুর, পুলিশের গুলিতে ৪ জন নিহত

# পূজা মণ্ডপে হামলার ঘটনায় জড়িতদের কঠিন শাস্তি দেওয়া হবে: শেখ হাসিনা

#এমন শাস্তি দিতে হবে যাতে ভবিষ্যতে কেউ সাহস না পায়, হুঁশিয়ারী বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর

# ২২ জেলায় প্যারামিলিটারি মোতায়েন

# হামলায় জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার ৪৩

# কয়েকটি জেলায় অনির্দিষ্টকালের জন্য ১৪৪ ধারা জরি

যুগশঙ্খ প্রতিবেদন, ঢাকা, বাংলাদেশের কুমিল্লায় একটি দুর্গাপূজার মণ্ডপে মূর্তির পায়ের উপর পবিত্র কোরানের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে বাংলাদেশ। মৌলবাদীরা বিক্ষোভ ও সমাবেশ করছে। শারদীয় উৎসবের সময় বিষয়টি নিয়ে বিষাদের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনার পর বুধবার মৌলবাদীরা কুমিল্লার নানুয়া দিঘীর পাড় পূজা মণ্ডপে হামলা ও ভাঙচুর করে। এরপর ৮ জেলায় ২০ মণ্ডপে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। মৌলবাদীদের ঠেকাতে পুলিশের গুলিতে ৪ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে শতাধিক। মণ্ডপে হামলার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ৪৩ দুষ্কৃতিকারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। কয়েকটি জেলায় অনির্দিষ্টকালের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন।

এদিকে কুমিল্লার ঘটনার পর বিভিন্ন মণ্ডপে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় দোষীদের যথাযথ শাস্তি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, এমন শাস্তি দিতে হবে যাতে, ভবিষ্যতে এমন করতে কেউ সাহস না পায়।

বৃহস্পতিবার ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে শারদীয় দুর্গাপূজার মহানবমীর অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা এ কথা বলেন।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে ঘটনা ঘটেছে সে ঘটনায় আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি, আমরা সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছিলাম। এ ব্যাপারে যথযথ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। যেখানে যেখানে এধরনের ঘটনা ঘটাবে সেখানেই তাদেরকে খুঁজে বের করা হবে।
আমরা অতীতেও করেছি এবং আমরা সেটা করতেও পারব। যথাযথ শাস্তি তাদের দিতে হবে। এমন শাস্তি দিতে হবে যাতে, ভবিষ্যতে এমন করতে কেউ সাহস না পায়।

হিন্দুদের উদ্দেশ্যে শেখ হাসিনা আরও বলেন, আমি আপনাদের আবারও অনুরোধ করব, আপনার কখনোই নিজেদেরকে সংখ্যালঘু ভাববেন না। আমরা আপনাদের সংখ্যালঘু না, আমরা আপনাদের আপনজন হিসেবে মানি। আমাদের এই দেশের নাগরিক হিসেবে মানি। সমঅধিকারে আপনারা বসবাস করেন। আপনারা সমঅধিকার ভোগ করবেন। সমঅধিকার নিয়ে আপনাদের ধর্ম পালন করবেন, উৎসব পালন করবেন। সেটাই আমরা চাই।’

কুমিল্লার পূজামণ্ডপে কোরআন পাওয়া এবং সেটিকে কেন্দ্র করে সহিংসতার জের ধওে কুমিল্লার পাশ^বর্তী চাঁদপুর জেলায় ৮ মন্দিরে হামলা ও পুলিশের সাথে হামলাকারীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার রাতের সেই সংঘর্ষে চার জন নিহত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার সকালেই তিনজন নিহত এবং দুজন গুরুতর আহত হবার কথা জানিয়েছিল পুলিশ। পরবর্তীতে আহতদের একজন হাসপাতালে মারা যান।

হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হারুনুর রশীদ জানান, বুধবার সন্ধ্যার পর মন্দির আক্রমণ করার এ ঘটনা ঘটে।

হাজীগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, মোমেনা আক্তার জানিয়েছেন, নিহতরা গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছেন। ঘটনার পর বুধবার রাত থেকে হাজীগঞ্জে ১৪৪ ধারা জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

এছাড়া বুধবার রাতেই নোয়াখালীর হাতিয়া এবং চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে মিছিল নিয়ে মন্দিরে হামলা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় পুলিশ।

এসব ঘটনার পর সারাদেশে দুর্গা পূজায় নিরাপত্তা দিতে ২২ জেলায় সীমান্তরক্ষী বাহিনী-বিজিবির সদস্যদের মাঠে নামানো হয়েছে। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) পরিচালক (অপারেশনস) লেফটেন্যান্ট কর্নেল ফয়জুর রহমান বৃহস্পতিবার এ কথা জানান।

তিনি বলেন, “জেলা প্রশাসনের চাহিদার প্রেক্ষিতে এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের নির্দেশে দুর্গা পূজার সময় নিরাপত্তা রক্ষায় এ পর্যন্ত কুমিল্লা, নরসিংদী, মুন্সীগঞ্জসহ ২২টি জেলায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।”

Related Articles

Back to top button
Close