fbpx
কলকাতাহেডলাইন

প্রাতঃভ্রমণকারীদের জন্য খুলছে রবীন্দ্র সরোবর ও সুভাষ সরোবর, টুইট ফিরহাদের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: পয়লা জুলাই থেকে প্রাতঃভ্রমণকারীদের জন্য খুলে যাচ্ছে রবীন্দ্র সরোবর ও সুভাষ সরোবর। লক ডাউনের পঞ্চম পর্যায়ের আনলক ২ পর্বে প্রাতঃভ্রমনে ছার দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণার পরেই সন্ধ্যে বেলা টুইট করে কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম শহরের দুই সরোবর খুলে দেওয়ার কথা জানান।

এদিন নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী জানান, “লকডাউন এ অনেকেই প্রাতঃভ্রমণে বেরোতে পারছেন না। অনেকের শরীর খারাপ হয়ে যাচ্ছে। তাই ভোর সাড়ে পাঁচটা থেকে সকাল ৮.৩০ পর্যন্ত প্রাতঃভ্রমণ করতে পারবেন সাধারন মানুষ।” এক্ষেত্রেও মাস্ক, দস্তানা ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। এর পরেই ফিরহাদ হাকিম টুইট করে জানান, “আমরা আনন্দের সহিত জানাচ্ছি যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে রবীন্দ্র সরোবর লেক ও সুভাষ সরোবর লেক ভোর সাড়ে পাঁচটা থেকে সকাল সাড়ে আটটা পর্যন্ত প্রাপ্ত ভ্রমণকারীদের জন্য উন্মুক্ত করা হচ্ছে”। এদিন টুইটারেও পুর প্রশাসক মুখ্যমন্ত্রীর সুর টেনে মাস্ক পড়তে ও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার অনুরোধ করেন।

আরও পড়ুন: ‘কথা না শুনলে সরকারই চালাবে বেসরকারি বাস’, চরম হুঁশিয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর

এদিকে পরিবেশবিদ সুমিতা বন্দ্যোপাধ্যায় অবশ্য এখনই রবীন্দ্র সরোবর খুলে দেওয়ার পক্ষপাতি নন। তিনি জানান, ” এখন লেক খুলে দিলেন প্রাতঃভ্রমণ কারীরা যদি আবার সেই তামাকজাত দ্রব্য খেয়ে তার থুতু যত্রতত্র ফেলেন তাহলে সেক্ষেত্রে সংক্রমনের সম্ভাবনা থাকছে।” পাশাপাশি রেখে এখন শুধুমাত্র প্রাতঃভ্রমকারী ছাড়া অন্য কাউকে রক্ত দেওয়ার অনুমতি না দেওয়ায় উচিত বলে তিনি জানান। এছাড়াও এখন সংক্রমণ যাতে বৃদ্ধি না পায় এবং লেকের দেখাশোনার সাথে ঠিকমতো হয় সেই কারণে পরিবেশ আদালতের নির্দেশ মেনে আপাতত রবীন্দ্র সরোবর লেক এর পরিচর্যা করা উচিত বলে তার মত। একইসঙ্গে এখন লেকে অবাধ প্রবেশ এর উপর রানা উচিত বলেই জানিয়েছেন তিনি। এ বিষয়ে তিনি বলেন, “এখন লেকে ঢুকতে ন্যূনতম কিছু টাকা টিকিট করা উচিত। এতে লেকের পরিচর্যা করতেও সুবিধা হবে”।

Related Articles

Back to top button
Close