fbpx
দেশহেডলাইন

কৃষি আইন বাতিলের জন্য কত জন কৃষক প্রাণ দেবেন, প্রশ্ন রাহুলের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: কৃষক আন্দোলনে যোগ দেওয়া আন্দোলনকারীদের মৃত্যুর প্রসঙ্গ তুলে সরকারকে তোপ দেগে প্রশ্ন করলেন, আর কতজন কৃষকের বলিদান দিতে হবে এই আন্দোলনে? শনিবার তিনি টুইট করে ক্ষোভ উগরে দেন। গত ১৭ দিনে নয়া কৃষি আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভরত কৃষকদের মধ্যে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী প্রশ্ন তুলেছেন, কৃষি আইন বাতিল করতে আরও কতজন কৃষক প্রাণ দেবেন।এদিন টুইটের সঙ্গে একটি খবরের কাগজের প্রতিবেদনকে উদ্ধৃত করেন প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি। সেই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এখনও পর্যন্ত আন্দোলনে অংশ নেওয়া ১১ জন কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। রাহুলের প্রশ্ন, ‘‘কৃষি আইন রদ করতে আমাদের কৃষক ভাইদের আর কত বলিদান দিতে হবে?’’ কৃষক আন্দোলনে অংশ নেওয়া একাধিক কৃষক মৃত্যুর কথা এর মধ্যেই জানা গিয়েছে। গত বুধবারই ৩২ বছরের অজয় মুর নামের এক কৃষকের মৃত্যু হয় শীতের প্রকোপে।

শুক্রবারও কেন্দ্রকে তোপ দেগেছিলেন রাহুল। তিনি মোদি সরকারকে কটাক্ষ করে দাবি করেছিলেন, দেশের সব কৃষকই পাঞ্জাবের কৃষকদের মতো আয় করতে চান। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার চাইছে, তাঁদের আয় বিহারের কৃষকদের মতো হোক। কংগ্রেসের মুখ্য মুখপাত্র রণদীপ সুর্যেওয়ালা বলেছেন, গত ১৭ দিনে ১১ জন কৃষক ভাই শহিদ হয়েছেন, কিন্তু মোদী সরকার তাতেও নরম হয়নি। তিনি টুইটে বলেছেন, সরকার অর্থদাতাদের সঙ্গে দাঁড়িয়ে আছে, অন্নদাতাদের সঙ্গে নয়। দেশ জানতে চাইছে, রাজধর্ম বড় না জেদ – প্রশ্ন করেছেন সূর্যেওয়ালা।

আরও পড়ুন: রাজনৈতিক প্রতিহিংসা’, মুখ্যসচিব-ডিজিকে তলব নিয়ে পালটা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিবকে চিঠি কল্যাণের

সেপ্টেম্বরে আইন হওয়া তিনটি কৃষি আইন নিয়ে সরকার বলেছে, কৃষি ক্ষেত্রে সংস্কার ফড়েদের দূর করবে ও কৃষকরা তাদের পণ্য দেশের যে কোনও জায়গায় বিক্রি করতে পারবেন।এদিকে প্রতিবাদীদের উত্তর, কেবলমাত্র নতুন তিনটি কৃষি আইন প্রত্যাহারের ব্যাপারে কথা বলতে চাইলেই তারা কথা চালাতে রাজি। শুক্রবারই কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমার সরকারের সদিচ্ছার কথা জানিয়ে দাবি করেন, প্রতিবাদী কৃষকরাই এখনও কোনও প্রস্তাব দেননি। এপ্রসঙ্গে আন্দোলনকারীদের বক্তব্য, সরকারের উচিত কখন তারা আলোচনায় বসতে চায় তা কৃষকদের জানানো।

Related Articles

Back to top button
Close