fbpx
দেশহেডলাইন

পাঞ্জাব-হরিয়ানায় কৃষকদের সমর্থনে আন্দোলনে যোগ দিতে পারেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী!

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: সংসদে পাশ হওয়া তিনটি কৃষি বিল ও পরবর্তী কালে কৃষি আইনের বিরোধীতায় গোটা দেশ ফুঁসছে। কৃষকরা এই বিলের অস্পষ্টতা নিয়ে ইতিমধ্যেই আন্দোলনে নেমে পড়েছেন। জানা গিয়েছে, প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী এ সপ্তাহে পাঞ্জাবে হওয়া কৃষক আন্দোলনে যোগ দিতে পারেন। তবে দিন ও সময় এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত হয়নি বলে কংগ্রেস সূত্রে খবর। কংগ্রেসের এক নেতা এই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, ‘পঞ্জাবের পর হরিয়ানায় কৃষকদের বিক্ষোভেও অংশ নিতে পারেন রাহুল গান্ধী। তবে হরিয়ানায় বিজেপি সরকার তাঁকে সেখানে ঢুকতে দেবে কিনা, সে বিষয়ে আমরা নিশ্চিত নই।’

তিনটি কৃষি বিলের বিরুদ্ধে গোটা দেশজুড়ে দু-মাস ধরে বিক্ষোভ আন্দোলনের ডাক দিয়েছে কংগ্রেস। পঞ্জাবে রাহুল গান্ধীর প্রতিবাদ মিছিল সেই আন্দোলনেরই অংশ হবে। গত সপ্তাহে সংসদে পাশ হয় তিনটি কৃষি বিল। রবিবার সেগুলিতে স্বাক্ষর করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। বিরোধীরা রাষ্ট্রপতির কাছে এখনই এই তিনটি বিলে স্বাক্ষর না করার জন্য অনুরোধ করেছিলেন। এগুলি উপযুক্ত নিয়ম মেনে সংসদে পাশ হয়নি বলে তাঁদের দাবি। বিরোধীদের সেই দাবি অবশ্য ফিরিয়ে দিন রাষ্ট্রপতি।

আরও পড়ুন: আগামী ৩১ অক্টোবর গুজরাট সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

কৃষকের উত্‍পাদন বাণিজ্য ও ব্যবসা (‌প্রচার ও সুবিধা)‌ বিল, ২০২০, কৃষকদের (‌ক্ষমতায়ন ও সুরক্ষা)‌ মূল্য আশ্বাস ও কৃষি পরিষেবার চুক্তি বিল ২০২০ এবং অত্যাবশ্যক পণ্য (‌সংশোধন বিল ২০২০, এই তিনটে বিল রাজ্য ও লোকসভা উভয় কক্ষেই পাস করানো হয়, যার জেরে দেশে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়েছে হরিয়ানা ও পাঞ্জাবে। রবিবার রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ তিনটে বিতর্কিত বিলে সম্মতি জানিয়েছিলেন। যদিও বিরোধীরা তা প্রত্যাহার করার জন্য বলেছে এবং যথাযথ নিয়মকানুন ও পদ্ধতি অনুসরণের পর তা পাস হলেই তাতে সই করবেন তিনি। যদিও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই আইনকে ভারতীয় কৃষির ইতিহাসে সন্ধিক্ষণের মুহূর্ত বলে অভিহিত করেন, যা লক্ষ লক্ষ কৃষককে ক্ষমতায়ন করবে।

Related Articles

Back to top button
Close