fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

প্রশান্ত কিশোরকে বড়লোক পরিযায়ী বলে কটাক্ষ করলেন রাহুল সিনহা

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায় বর্ধমান: ‘পরিযায়ী শ্রমিকদের সঙ্গে নক্কারজনক আচরণ করছে এই রাজ্যের সরকার।অথচ নিজেদের বড়লোক উপদেষ্টা পরিযায়ী প্রশান্ত কিশোরকে দিচ্ছে ৫০০ কোটি টাকা। খালি গরিদবের দেবার বেলাতেই ওরা বলছে টাকা নেই। ’সোমবার বর্ধমানের জেলা পার্টি অফিসে সাংবাদিক বৈঠকে এই কথা বললেন বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা ।  বিজেপির পক্ষ থেকে এদিন বর্ধমানের জেলা  পার্টি অফিসে বিশেষ সাংবাদিক বৈঠকের  আয়োজন করা হয় । ওই বৈঠকে জেলা বিজেপি সভাপতি সন্দীপ নন্দীকে পাশে নিয়ে রাহুল সিনহা আগাগোড়াই রাজ্য সরকারের সমালোচনায় মুখর হন। শুধু প্রশান্ত কিশোরকে নিয়ে কটাক্ষ করাই নয় । রাহুল সিনহা তৃণমূলকে চাল চোর , ডাল চোর বলেও কটাক্ষ করেন। একই সঙ্গে তিনি বলেন ,রাজ্য সরকার পরিযায়ী শ্রমিকদের সঙ্গে ন্যক্কারজনক আচরণ করছে।কেন্দ্র সরকার ট্রেন দিতে চাইলেও রাজ্য ট্রেন নিচ্ছে না।

এমনকি পরিযায়ী শ্রমিকদের রেশনও ওরা চুরি করছে বলেও এই কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতা  অভিযোগ করেছেন । অমিত শাহর ভার্চ্যুয়াল সভার প্রসঙ্গ তুলে ধরেও তৃণমূলকে বেঁধেন রাহুল বাবু। তিনি বলেন ,তৃণমূল অমিত শাহের ভার্চ্যুয়াল সভা নিয়েও কটাক্ষ করছে।ওরা বলেছে, ভার্চ্যুয়াল সভা করতে অনেক খরচ হয়। রাহুল সিনহা এদিন দাবি করেন, ভার্চ্যুয়াল সভা করতে তেমন কোন খরচই লাগে না। উল্টে রাহুল বাবুর ব্যাখ্যা তৃণমূল তো নিজেই এখন ভিডিও কনফারেন্স করছে।আশলে ওরা মিথ্যে প্রচার করেও বিজেপির দেখানো পথেই হাঁটছে।পাশাপাশি রাহুল সিনহা স্পষ্ট জানিয়ে দেন ২০২১ অবধি বিজেপির এমন অনেক সভা হবে। কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতা রাজনাথ সিং, স্মৃতি ইরানী প্রমুখরাও ওইসব সভায় থাকবেন।

আরও পড়ুন: সুপ্রিম কোর্টের কাছে থাপ্পড় খেয়েছে রাজ্য সরকার, রানাঘাটে বললেন দিলীপ ঘোষ

করোনা পরিস্থিতিতে কেন্দ্রের লকডাউন চালু করার সিদ্ধান্ত প্রসঙ্গে রাহুল সিনহা বলেন , লকডাউন চালু না হলে করোনা আক্রান্তের সখ্যাটা ২৫ লক্ষে গিয়ে দাঁড়াতো । এখনও সংক্রমিতের সংখ্যা প্রতিদিন ১০-১১ হাজার করে বাড়ছে। এটা যথেষ্টই চিন্তার বিষয় । রাহুল বাবু বলেন ,করোনা উদ্ভুত পরিস্থিতি বিবেচনা করে কেন্দ্রের সরকার ২০ লক্ষ টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষনা করেছে । ছোট ব্যবসাদারদের জন্য ৩ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ নেবার ব্যবস্থা করা হয়েছে । সেই ঋণ পাবার জন্য ইতিমধ্যেই এই রাজ্যের ২৬ হাজার ৮৩৪ জন ছোট ব্যবসায়ী আবেদন করেছেন । কৃষকদের জন্যও সুলভ ঋণের ব্যবস্থা করছে কেন্দ্রের সরকার । ঋণ চেয়ে কৃষকদের আবেদনও জমা পড়তে শুরু করেছে ।

এছাড়াও রাস্তায় ঘুরে ঘুরে যারা মাল বিক্রী করেন তাদের জন্যও কেন্দ্রীয় সরকার ২ লক্ষ কোটি টাকার সংস্থান রেখেছেন । রাহুল বাবু এদিন অভিযোগ করেন , রাজ্য সরকার নামের তালিকা না দেওয়ায় বাংলা কৃষকরা কেন্দ্রের সরকারের দেওয়া কৃষক সন্মান বিধির ৬ হাজার টাকা পাওয়া থেকে বঞ্চিত হয়েছেন ।নদীয় ও পুরুলিয়ায় বিজেপির কিছু পঞ্চায়েত শাসক দল দখল করে নিয়েছে বলেও রাহুল সিনহা এদিন অভিযোগ করেছেন।এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন ,লোকসভা ভোটের আগেও ওরা এমনটাই করেছিল।মানুষ তার প্রতিদান দিয়েছে।এবার ২০২১ এর বিধানসভার ভোটেও মানুষ একই প্রতিদান ওদের দেবে।

Related Articles

Back to top button
Close