fbpx
কলকাতাহেডলাইন

সোমেন মিত্রের শ্রাদ্ধ বাসরে রাজনৈতিক সৌজন্যের পরিচয় রাখলেন রাহুল সিনহা

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: সোমবার প্রদেশ কংগ্রেসের প্রয়াত সভাপতি সোমেন মিত্রের লোয়ার রডন স্ট্রিটের বাড়িতে শ্রাদ্ধবাসরে গিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা।

প্রয়াত নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন। এরপর সোমেন মিত্রের স্ত্রী শিখা মিত্র ও পুত্র রোহন মিত্রকে সমবেদনা জানান। বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক বলেন, ‘রাজনীতিগতভাবে বিপরীত অবস্থান হলেও সোমেন মিত্রর সঙ্গে ব্যক্তিগতস্তরে খুব ভালো সম্পর্ক ছিল। উনি বাংলার রাজনীতিতে একজন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব ছিলেন। ওঁর প্রয়াণে বাংলা একজন বড়ো মাপের রাজনীতিককে হারিয়েছে। সবাইকে মানিয়ে চলতে পারতেন, সুন্দর মনের মানুষ ছিলেন। একজন শ্রদ্ধেয় মানুষকে শ্রদ্ধা জানাতে এসেছিলাম।’

ঘটনা হলো সোমেন মিত্রর পরিবারের তরফে আমন্ত্রণ জানিয়ে কার্ড পাঠানো হয় মুখ্যমন্ত্রীর কালিঘাটের বাড়িতে। সোমেন মিত্রের পুত্র রোহন মিত্রকে নিজে আলিমুদ্দিন স্ট্রিট ও বিজেপি দফতরে মুরলীধর সেন লেনে গিয়ে নিমন্ত্রণ করে আসেন। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ দলীয় কাজে শহরের বাইরে থাকায় যেতে না পারলেও কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা এদিন শ্রাদ্ধ বাসরে যান।

সূত্রের খবর, আগামী ২৬ আগস্ট ক্ষুদিরাম অনূশীলন কেন্দ্রে প্রয়াত সোমেন মিত্রের স্মরণসভার আয়োজন করতে চেয়ে রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে। এই স্মরণসভাতেও বাম, তৃণমূলের পাশাপাশি বিজেপিকে ও আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে।

প্রদেশ কংগ্রেসের জনৈক নেতার বক্তব্য,’ সব দলের নেতাদের সঙ্গেই ব্যক্তিগত যোগাযোগ ছিল সোমেনদার। এখন যাঁরা তৃণমূল বা বিজেপিতে আছেন তাঁদের অনেকেই একসময় তাঁর সঙ্গে দল করেছেন। তাই সবাইকেই আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে।’ কবি বলেছিলেন, মেলালেন তিনি মেলালেন। সোমেন মিত্র ও এই দুঃসময়ে সবাইকে ক্ষণিকের জন্য হলেও মেলালেন।

Related Articles

Back to top button
Close