fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রেলে হকারদের কেন বাধা দেওয়া হচ্ছে? বিক্ষোভ CITU’র

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর : শিয়ালদহ মেন শাখায় ট্রেন চলাচল শুরু হল বুধবার সকাল থেকে । তবে ট্রেনে কোন রেলওয়ে হকারকে উঠতে দেওয়া হচ্ছে না । শিয়ালদহ ডিভিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ট্রেনে বা প্লাটফর্মে এখনই হকারদের ব্যবসা করার বিষয়ে কোন ছাড়পত্র বা অনুমতি দেয় নি । এদিকে ট্রেন চালু হওয়ায় এবার রেলওয়ে হকারদের ট্রেনে ব্যবসা করার অনুমতি দিতে হবে, এই দাবিতে ব্যারাকপুর রেল স্টেশন চত্বরে বিক্ষোভ দেখায় সিটু সমর্থকরা । ব্যারাকপুরের সিটু নেত্রী গার্গী চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে চলে বিক্ষোভ কর্মসূচি । এদিন গার্গী চট্টোপাধ্যায় বলেন, “মানুষই নিজের সমস্যার সমাধান করেছে । মানুষ নিজে থেকেই এখন সচেতন । সব দোকান, বাজার খুলে যাচ্ছে, ছন্দে ফিরছে নাগরিকরা । তবে কি অপরাধ করেছে গরীব হকাররা । ওদের ব্যবসা করতে দিতে হবে । ওদের যদি ব্যবসা করার অনুমতি না দেওয়া হলে হকার ভাইয়েরা জোর করে চলন্ত ট্রেনে উঠে ব্যবসা শুরু করবে । ওদের রুজিরুটি বন্ধ হতে দেব না ।”

এদিন সিটু র পক্ষ থেকে ব্যারাকপুর রেল স্টেশনের আধিকারিকদের হাতে এই ইস্যুতে স্মারকলিপি প্রদান করা হয় । এদিকে আই এন টি টি ইউ সির পক্ষ থেকে এদিন ব্যারাকপুর রেল স্টেশন চত্বরে নিত্য যাত্রীদের সকলকে স্যানিটাইজার দিয়ে জীবাণুমুক্ত করে যারা মাস্ক ছাড়া প্লাটফর্মে প্রবেশ করছিলেন তাদের মাস্ক প্রদান করা হয় । এদিন প্ল্যাটফর্মের বেশ কিছু হকাররা তাদের দোকান গুলি সাফাই করেন । ওই হকাররা আশাবাদী এবার হয়ত তাদের ব্যবসা করার অনুমতি মিলবে । শিয়ালদহ মেন শাখায় বুধবার সকাল থেকে ট্রেন চলাচল শুরু হওয়ায় খুশী নিত্যযাত্রীরা ।

করোনা সচেতনতা মাথায় রেখেই নিত্য যাত্রীরা এদিন ট্রেনে যাত্রা করেছেন । নিত্যযাত্রীরা জানিয়েছেন, শিয়ালদহ মেন শাখায় অবিলম্বে ট্রেনের সংখ্যা বাড়াতে হবে । তবেই যাত্রীরা কিছুটা স্বচ্ছন্দে যাতায়াত করতে পারবে । এদিন শিয়ালদহ মেন শাখায় বিভিন্ন রেল স্টেশনে নিত্য যাত্রীদের একাধিকবার থার্মাল স্ক্রিনিং করা হয়েছে । যাদের স্বাভাবিকের তুলনায় বেশি তাপমাত্রা তাদের স্টেশনে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি । শিয়ালদহ মেন শাখায় প্রথমদিন করোনা সচেতনতা বজায় রেখে নিত্যযাত্রীরা নির্দিষ্ট গন্তব্যে যাত্রা করেছেন ।

Related Articles

Back to top button
Close