fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

অবশেষে কাটল জট, ১৪ আগস্ট শুরু রাজস্থান বিধানসভার অধিবেশন

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  অবশেষে কাটল জট, টানা কয়েকদিন ধরে চলা জট অবশেষে কাটল। শেষপর্যন্ত রাজস্থানের রাজ্যপাল কলরাজ মিশ্রর কথা মতোই ঠিক হল রাজস্থান বিধানসভা অধিবেশনের দিন! রাজ্য বিধানসভার অভিবেশন শুরু হচ্ছে ১৪ আগস্ট ।বুধবার এই বিষয়ে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে তাঁর নির্দেশে। রাজ্যপাল কলরাজ মিশ্রের আচরণ সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ফোন করে নালিশ করেছিলেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের কাছে চিঠি পাঠিয়ে অভিযোগ জানাবেন বলেও প্রকাশ্যে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন। আর তাতেই খুলল জট!

রাজ্যপালের দফতর থেকে প্রকাশিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, মন্ত্রিসভার তরফে পাঠানো প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে আগামী ১৪ আগস্ট থেকে রাজস্থান বিধানসভার পঞ্চম অধিবেশন শুরু করার অনুমতি দিয়েছেন রাজ্যপাল। তবে এই অধিবেশনে বিধায়কদের সবরকম স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে বলেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে তিনিবার রাজ্য বিধানসভা অধিবেশন শুরু করার প্রস্তাব খারিজ করে দেন কলকাজ মিশ্র। কখনও রাজ্যের প্রস্তাবের পাল্টা করেছেন ৬ প্রশ্ন, কখনও আবার ৩টি মোক্ষম প্রশ্নে গেহলটকে নাকানিচোপানি খাইয়েছেন। রাজ্য সরকার বারবারই ৩১ জুলাই বিধানসভার অধিবেশন ডাকার ব্যাপারে রাজ্যপালের ওপরে পরোক্ষে চাপ তৈরির চেষ্টা করছিল। শেষবার রাজ্যপাল যুক্তি দেখান, ২১ দিনের নোটিস না দিয়ে রাজ্য বিধানসভার অভিবেশন ডাকার মতো কোনও পরিস্থিতি নেই। রাজ্য সরকার তেমন কোনও কারণও দেখাতে পারেনি। তাঁর প্রশ্ন ছিল, এই অধিবেশনে আস্থা ভোট করা হবে কিনা, ২১ দিনের নোটিস দিয়ে বিধায়কদের ডাকা হবে কিনা এবং করোনা পরিস্থিতিতে সোশ্যাল ডিস্টানসিং মানা হবে কিনা।

আরও পড়ুন: প্রয়াত সোমেন মিত্র, শোকপ্রকাশ করলেন রাহুল গান্ধী

শেষ পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ঠাণ্ডা লড়াইয়ে ইতি টানতে ১৪ অগস্ট থেকে অধিবেশন ডাকার বিষয়ে সম্মত হন রাজ্যপাল। রাতেই এ বিষয়ে রাজ্যপালের কার্যালয় থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আগামী ১৪ অগস্ট থেকে রাজস্থান বিধানসভার পঞ্চম অধিবেশন শুরু করার জন্য মন্ত্রিসভার সুপারিশে সম্মতি দিয়েছেন রাজ্যপাল। তবে বিধানসভার অধিবেশন ডাকার বিষয়ে সম্মতি দেওয়ার পাশাপাশি করোনা পরিস্থিতিতে যাতে অধিবেশনের সময় সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা সহ যাবতীয় সুরক্ষা ও সতর্কতা মেনে চলা হয় সে দিকেও নজর রাখার নির্দেশ দিয়েছেন রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান।

শচীন পাইলট শিবিরের চাপের মধ্যে দ্রুত বিধানসভার অধিবেশন ডেকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে চাইছিলেন গেহলট। ২০০ আসন বিশিষ্ট বিধানসভায় তাঁর দিকে ১০২ জনের সমর্থন রয়েছে বলে দাবি করে রাজ্যপালকে চিঠিও দিয়েছেন তিনি। অধিবেশন ডাকার দাবিতে গত শুক্রবার রাজভবনের সামনে ৫ ঘণ্টা ধরে প্রতিবাদ-বিক্ষোভে সামিল হয়েছিলেন গেহলট। কিন্তু কোনও কিছুতেই চিঁড়ে ভেজেনি। একের পর এক প্রশ্ন তুলে গিয়েছেন রাজ্যপাল। কংগ্রেসের অভিযোগ, পাইলট শিবিরকে দল ভাঙানোর সুযোগ করে দেওয়া হচ্ছিল।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close