fbpx
দেশহেডলাইন

চাই মরুরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর গদি,দাবি সচিনের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  মরুরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে বসা দীর্ঘদিনের স্বপ্ন। একমাত্র মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে অশোক গহলটকে অপসারণ করলেই দলে থাকবেন বলে মঙ্গলবার সকালেই কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বকে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। শুধু তাই নয় ঘনিষ্ঠ বিধায়ক ভনওয়ার লাল শর্মাকে দিয়ে কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি রাহুল গান্ধিকে বেনজিরভাবে আক্রমণও শানিয়েছেন। এমনকি কংগ্রেস নেতৃত্বের ডাক উপেক্ষা করে এদিন জয়পুরে দলীয় বিধায়কদের বৈঠকে যোগও দেননি।

মঙ্গলবার কংগ্রেস বিধান পরিষদীর দলের বৈঠকে যোগ দেননি সচিন। ফলে দিল্লি নেতারা মিটমাট বা আলোচনার দরজা খোল রয়েছে বলে যতই ব্লুক না কেন ঘাড় কাত করতে রাজী নন রাজেশ পুত্র। সোমবারও একটি বৈঠক ডেকেছিলেন অশোক গেহলট। সেই বৈঠকেও যোগ দেননি সচিন-সহ মোট ১৬ বিধায়ক। মঙ্গলবার রাজস্থান কংগ্রেসের ভারপ্রাপ্ত ইনচার্জ অবিনাশ পান্ডে জানান, দল চায় সচিনকে একটা সুযোগ দিতে। উনি আজকের বৈঠকে যোগ দিন। রবিবার থেকে গোলমাল শুরু রাজস্থানে। উপ মুখ্যমন্ত্রী সচিন পাইলট একপ্রকার মুখ্যমন্ত্রী গেহলটের বিরুদ্ধে বিদ্রোহের ঝাড়া তুলে ধরেন।  তাঁকে উপ মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে সরানো হচ্ছে এমন অভিযোগ তুলে তিনি দৌড়ন দিল্লিতে। দাবি করেন তাঁর সঙ্গে ৩০ বিধায়ক রয়েছেন। এতেই চাপে পড়ে যায় হাইকমান্ড ও রাজ্যে কংগ্রেস। পরিস্থিতি সামাল দিতে সচিনের সঙ্গে দফায় দফায় কথা বলতে থাকেন রাহুল গান্ধী, প্রিয়ঙ্কা গান্ধী, আহমেদ প্যাটেল, পি চিদম্বরম ও কে সি বেণুগোপালের মতো নেতা। তাতেও বাগে আসেননি সচিন।

আরও পড়ুন: মহারাষ্ট্রে স্টিল প্ল্যান্টে বিস্ফোরণ, মর্মান্তিক মৃত্যু ২ জনের

রাজস্থানের বিদ্রোহী নেতা অনড় মনোভাব দেখে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা নিশ্চিত, কংগ্রেস ছেড়ে পদ্ম শিবিরেই পা বাড়িয়ে রয়েছেন শচিন পাইলট। বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বকে যে শর্ত দিয়েছেন, সেই শর্ত পূরণের জন্য অপেক্ষা করছেন তিনি। বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বের বিশেষ নির্দেশে আজই জয়পুরে জরুরি বৈঠকে বসছেন দলের রাজ্য নেতৃত্ব। পাইলটকে মুখ্যমন্ত্রীর পদে মেনে নেওয়া হবে কিনা, তা নিয়ে আলোচনা করা হবে। বিশেষ করে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়াকে এ বিষয়ে রাজি করানোর একটা চেষ্টা চালানো হবে বলেই রাজস্থান বিজেপির এক শীর্ষ নেতা ইঙ্গিত দিয়েছেন।

দলবিরোধী কার্যকলাপ ও  সরকারকে উচ্ছেদ করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগে রাজস্থানের বাগী কংগ্রেস নেতা সচিন পাইলটকে উপমুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি তাঁকে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকেও হঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে পাইলটের সঙ্গী দুই মন্ত্রী রমেশ মিনা ও বিশ্বেন্দ্র সিংহকেও মন্ত্রীপদ থেকে হঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার জয়পুরে কংগ্রেস পরিষদীয় দলের বৈঠকে এমনই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছ। বৈঠকের পরে কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা এ খবর জানিয়েছেন।

 

Related Articles

Back to top button
Close