fbpx
দেশহেডলাইন

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক, আইন আনছে রাজস্থান সরকার

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার বিরুদ্ধে লড়াইতে একমাত্র ভরসা মাস্ক । কিন্তু সেই মাস্ক পরতেও অনেকের মধ্যে অনীহা রয়েছে। তাই করোনা আবহে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করতে বিল আনা হল রাজস্থানে। এ দিন বিধানসভায় সংক্রমক অসুখ সংক্রান্ত (সংশোধনী) বিলটিতে বলা হয়েছে, মুখ ও নাক ঠিক মতো না ঢেকে জনসমক্ষে যাওয়া যাবে না। দিল্লিতেও মাস্ক পরার ক্ষেত্রে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন। তিনি বলেছেন, ‘‘যত দিন না প্রতিষেধক আসছে, তত দিন মাস্ককেই প্রতিষেধক হিসেবে ধরে নিতে হবে। সোমবার একথা জানিয়েছেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। একই সঙ্গে করোনা রোগীদের কথা মাথাই রেখে এবছর মরু রাজ্যে নিষিদ্ধ হয়েছে বাজি পোড়ানোও। বন্ধ থাকছে বাজি বিক্রি।

করোনা  সংক্রমণ ঠেকাতে একমাত্র উপায় মাস্ক পরা। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সেই পরামর্শকে হেলায় উড়িয়ে দেন অনেকে।  তাই এবর আইনি পদক্ষেপ করছে রাজস্থানের কংগ্রেস সরকার। মাস্ক পরার বাধ্যতামূলক করতে সোমবার রাজস্থান বিধানসভায় বিল আনা হয়।মরু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট  টুইটারে লেখেন, মাস্কই করোনার ভ্যাকসিন। তাই এ বিষয়ে রাজস্থানে আইন আসছে। তাঁর কথায়, “রাজস্থানের করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চলছে। সেই লড়াইয়ে সামিল হতে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক। তাই এই আইন আনা হচ্ছে।” উল্লেখ্য, ভারতে রাজস্থানই প্রথম রাজ্য, যেখানে মাস্ক বাধ্যতামূলক করতে আইনি পদক্ষেপ করা হচ্ছে। একই সঙ্গে তিনি বাজি বিক্রি ও পোড়ানোর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন।

আরও পড়ুন: রাজ্যে বাড়ল বিদেশি মদের দাম, নিপের চাহিদা বাড়বে দাবি বিক্রেতাদের

করোনা সমীক্ষা বৈঠকের সময় মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট বাজি  বিক্রি ও আতশবাজির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করার সিদ্ধান্ত নেন। বাজির ধোঁয়ায় কোভিড আক্রান্ত রোগীদের শারীরিক সমস্যা হচ্ছে বলে খবর। সে কথা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন গেহলট। তিনি আরও জানিয়েছেন, বাজি বিক্রির অস্থায়ী লাইসেন্সও আপাতত নিষিদ্ধ করছে সরকার। শুধু দিপাবলী নয়, বিয়ে-সহ অন্যান্য অনুষ্ঠানেও আতশবাজি পোড়ানো নিষিদ্ধ করা হল রাজস্থানে।

Related Articles

Back to top button
Close