fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

নাবালিকাকে ধর্ষণ ৬২ বছরের বৃদ্ধ

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা: চোদ্দো বছরের এক কিশোরীকে গত সাত আট মাস ধরে লাগাতার ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিবেশী ৬২ বছরের বৃদ্ধর বিরুদ্ধে, অভিযুক্তের নাম সুধাংশু মন্ডল, তিনি সিপিএমের মেম্বার ছিলেন। ঘটনাটি ঘটেছে বসিরহাট মহকুমা  হাসনাবাদ থানার পিফা গ্রামে। নির্যাতিত ওই নাবালিকা নিজের অভিযোগ দায়ার করেন।

দীর্ঘ সাত আট মাস ধরে রাতের অন্ধকারে আমার ঘরে ঢুকতো, তারপর আমার মুখের উপরে একটি রুমাল দিয়ে চাপা দিতো, তারপর আমি আর কিছু বলতে পারি না, দীর্ঘদিন ধরে আমার ওপর শারীরিক নির্যাতন চালিয়েছে। কিছুদিন পর আমার শারীরিক অসুস্থ বোধ করি, তারপর তাকে জানানো হয় আমার শরীর ভালো না আমায় ওষুধ এনে দাও, ওষুধ এনে দেওয়ার নাম করে আরও বেশ কিছুদিন একই রকম ভাবে অত্যাচার চালাতে থাকে ওই বৃদ্ধা। নাবালিকার বাবা মারা যায় ছয় বছর আগে, মা সাথী মন্ডল কলকাতায় এক বাড়িতে পরিচারিকার কাজ করেন, বাড়িতে বেশিরভাগ সময় একা থাকতো ওই কিশোরী। প্রতিবেশী সুধাংশু মন্ডল ওই নাবালিকাকে ভয় দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করার পরেও কাউকে জানালে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: অসহায় বিধবা মহিলাদের পাশে বিজেপি নেতা ক্ষুদিরাম টুডু

গর্ত ১৭ তারিখে ওই কিশোরী  পুরো বিষয়টা বাড়িতে জানায়, কিশোরী শারীরিক অসুবিধা বুঝতে পেরে মা ও দিদিমাকে নিয়ে হাসনাবাদ থানায় ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করে। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে হাসনাবাদ থানার পুলিশ সুধাংশু মন্ডলকে গ্রেফতার করে পিফার বাড়ি থেকে, জানা গেছে অভিযুক্ত সুধাংশু মন্ডল ফিফা পঞ্চায়েতের প্রাক্তন সিপিএমের মেম্বার ছিলেন।এলাকাবাসীদের দাবি অভিযুক্তকে কঠিন শাস্তি দেওয়া হোক।   ওই নাবালিকার অভিযোগ আমার সঙ্গে যা করেছে, আর কারুর সঙ্গে এরকম কাজ যেন না হয়, অভিযুক্তকে কঠিনতম শাস্তি দেওয়া হোক। ওই নাবালিকার মেডিকেল টেস্ট করা হয়েছে এবং বসিরহাট মহকুমা আদালতের ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে গোপন জবানবন্দি দিয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close