fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বাতিল হবে মৃত গ্রাহকদের রেশন কার্ড

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা:  যে সব রেশন গ্রাহক ইতিমধ্যেই মারা গিয়েছেন কিন্তু তাঁদের কার্ড এখনও বহাল আছে, সেই সমস্ত মানুষদের কার্ড এবার বাদ দিতে চলেছে রাজ্য খাদ্য দফতর। এই সমস্ত কার্ডের গ্রাহকদের চিহ্নিত করতে রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের থেকে তথ্য নিতে চলেছে খাদ্য দফতর। এমনটাই খবর সংশ্লিষ্ট দফতর সুত্রে।
নিয়মানুযায়ী পরিবারের কেউ মারা গেলে সেই সদস্যের কার্ড খাদ্য দফতরকে জানিয়ে বন্ধ করে দিতে হয়। এর জন্য ৭ নম্বর ফর্ম পূরণ করে জমা করতে হয়। একই সঙ্গে যে রেশন দোকানে ওই কার্ড নথিভুক্ত রয়েছে সেই রেশন দোকানের ডিলারের উচিত বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসন তথা খাদ্য দফতরকে জানানো। কিন্তু দেখা যাচ্ছে বহু ক্ষেত্রেই তা কেউই করছেন না, বা করলেও দেরি করে করছেন। ফলে মৃত্যুর পরেও ওই ব্যক্তির জন্য খাদ্য বরাদ্দ হয়েই চলেছে। এবার এটি বন্ধ করতে রাজ্যের বিভিন্ন পুর কর্তৃপক্ষের ও পঞ্চায়েতের সাহায্য নিয়ে মৃতদের চিহ্নিত করার উদ্যোগ নিচ্ছে খাদ্য দফতর। সূত্রের খবর, স্বাস্থ্য দফতরের থেকে চাওয়া হবে জেলাওয়াড়ি মৃত ব্যক্তিদের নামের তালিকা। সেটা হাতে পেলেই সমীক্ষা শুরু করে স্বচ্ছতা যাচাই করবে খাদ্য দফতর। তারপর মৃত ব্যক্তিদের কার্ডগুলি অনলাইনে বাতিল করবে কর্তৃপক্ষ।
এদিকে, বাংলার প্রায় ৬ কোটি ২ লক্ষ মানুষ জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা প্রকল্পের আওতাভুক্ত। খাদ্য দফতর মনে করছে, জাতীয় প্রকল্পের উপভোক্তা বা গ্রাহকদের মৃত্যুর পরও জায়গা ফাঁকা হলে সেখানে নতুন কাউকে ঢোকানোর সুযোগ থাকবে। এতে রাজ্যের যে রেশন প্রকল্প আছে সেখান থেকে গ্রাহকদের অনেককেই কেন্দ্রীয় প্রকল্পে আনা যাবে। সেটা করতে পারলে রাজ্য সরকারের কিছুটা হলেও আর্থিক সাশ্রয় হবে। সেই কারণেই মৃতদের কার্ড পিছু বরাদ্দ খাদ্যশস্য বন্ধ করতে গত কয়েক মাস ধরেই সক্রিয় খাদ্য দফতর। অনেক পুরসভা ও পঞ্চায়েত এখন ডেথ সার্টিফিকেট ইস্যু করার আগে রেশন কার্ড বাতিল করার নথি চাইছে। কিন্তু সব জায়গায় তা হচ্ছে না বলে জানতে পেরেছে খাদ্য দফতর। আবার অনেক সময় পুরসভা বা পঞ্চায়েতে তা জমা হলেও ঠিক সময়ে সেসব খাদ্য দফতরে তা এসে পৌঁছচ্ছে না। বিশেষ করে গত ৫ মাসে লকডাউনের জন্যে তা আসছে না। তাই এবার অনলাইনেই স্বাস্থ্য দফতরের সাহায্য নিয়ে মৃত রেশন গ্রাহকদের চিহ্নিত করতে চাইছে খাদ্য দফতর।
এই বিষয়ে রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানিয়েছেন, ‘মৃত ব্যক্তিদের তালিকা যাতে নিয়মিত পাওয়া যায়, তার জন্য স্বাস্থ্য দফতরকে ইতিমধ্যেই চিঠি দেওয়া হয়েছে। এর আগেও মৃত ব্যক্তিদের রেশন কার্ড বাতিল করতে সচেষ্ট হয়েছিল খাদ্য দফতর। কিন্তু সঠিক তথ্যে অভাবে তা আর করে ওঠা হয়নি। কিন্তু এবার বেশ কড়া ভাবেই তা করা হবে। গ্রাহকদেরও সচেতন হতে হবে। রেশন ডিলারদেরও এই বিষয়ে স্বচ্ছ হতে হবে।’

Related Articles

Back to top button
Close