fbpx
কলকাতাহেডলাইন

মদ্যপ ছাত্র, বেপরোয়া গাড়ির ধাক্কায় মৃত ১

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ফের ভয়াবহ দুর্ঘটনার সাক্ষী রাতের কলকাতা। ঘটনাটি ঘটেছে গড়ফার সাপুইপাড়ার বটতলা পার্কে। বেপরোয়া গাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু এক ব্যক্তির।  আহত আরও একজন। স্থানীয়দের অভিযোগ, চালক মদ্যপ থাকার কারণেই এই পরিণতি। জানা গিয়েছে, গতকাল রাতে যাদবপুর থেকে বাইপাসের দিকে যাচ্ছিল গাড়িটি। সাপুইপাড়া বটতলার কাছে বাড়ির সামনেই দাঁড়িয়েছিলেন রতন সরকার নামে এক ব্যক্তি।  নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রথমে ওই ব্যক্তিকে ধাক্কা মারে গাড়িটি। রতন বিশ্বাসের থেকে কিছুটা দূরেই দাঁড়িয়েছিলেন আরেক দম্পতি। তাঁদেরও ধাক্কা মারে গাড়ি।

জানা গিয়েছে, ওই বেপরোয়া গাড়ির চালকের আসনে ছিল বছর ২৩-এর শুভম। সঙ্গে ছিল তার বন্ধুরা। নিউ আলিপুরে একটি পার্টিতে গিয়েছিল তারা। ফেরার সময়ই ঘটে দুর্ঘটনা। প্রতক্ষ্যদর্শী সূত্রে খবর, রবিবার রাতে অত্যন্ত দ্রুতগতিতে যাদবপুরের দিক থেকে বাইপাসের দিকে যাচ্ছিল গাড়িটি। সেই সময় সাপুইপাড়া বটতলা এলাকায় দাঁড়িয়ে ছিলেন রতন সরকার নামে এক ব্যক্তি। আচমকা বেপরোয়া গাড়িটি ধাক্কা দেয় তাঁকে। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খানিকটা এগিয়ে আরও এক দম্পতিকে ধাক্কা দেয় গাড়িটি। এরপর একটি বিদ্যুতের খুঁটিতে সজোরে ধাক্কা দেয় ওই গাড়ি। স্থানীয়রা তড়িঘড়ি রতনবাবুকে উদ্ধার করে নিয়ে যায় হাসপাতালে। সেখানে ডাক্তাররা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করে। কোনওক্রমে দুর্ঘটনার হাত থেকে বেঁচে যান নিলোত্‍পল বিশ্বাসের স্ত্রী।

আরও পড়ুন: বিক্ষোভ অব্যাহত, আজ ভুগ হরতালের ডাক দিয়ে আন্দোলনে কৃষকরা

এদিকে অভিযুক্তদের আটক করে স্থানীয়রা। খবর দেওয়া হয় পুলিশে। দুর্ঘটনার খবর পাওয়ামাত্র পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে অভিযুক্তদের তাঁদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। স্থানীয়দের অভিযোগ, অভিযুক্ত ও তার সঙ্গীরা সকলেই মদ্যপ ছিল, যার জেরে এই দুর্ঘটনা। অভিযুক্তদের কঠোরতম শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তাঁরা। সূত্রের খবর, ব্যবসায়ী পরিবারের ছেলে শুভম। ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের পড়ুয়া। পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, অভিযুক্তরা সত্যিই মদ্যপ ছিল কি না, তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। গাড়ির কোনও যান্ত্রিক ত্রুটি ছিল কি না তাও খতিয়ে দেখা হবে।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close