fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিপত্তারিনী পুজোয় সামাজিক দূরত্বকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে প্রাচীন দুর্গামন্দিরে রেকর্ড ভিড় মহিলাদের

দিব্যেন্দু রায়, কাটোয়া: করোনা আতঙ্ক ভুলে  কাটোয়ার  প্রাচীন দুর্গামন্দিরে বিপত্তারিনীর পুজো দিতে ভিড় জমালেন স্থানীয় গৃহবধুরা। কাটোয়া পুরসভার পাঁচ নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় রয়েছে ওই দুর্গা মন্দিরটি। শনিবার  কাটোয়া শহর এলাকা ছাড়াও  সুদপুর, খাজুরডিহি, কোশিগ্রামসহ আশপাশের একাধিক গ্রাম থেকে শতাধিক মহিলা  বিপত্তারিনীর পুজো দিতে ওই দুর্গামন্দিরে ভিড় জমান। করোনা ভাইরাসের সংক্রমন এড়াতে যে বিধিনিষেধ মেনে চলার কথা সরকারিভাবে প্রচার করা হচ্ছে তার ছিটেফোঁটা লক্ষ্য করা যায়নি মন্দিরে আগত পূন্যার্থীদের মধ্যে।

পূন্যার্থীদের মধ্যে ছিল না কোনও সামাজিক দূরত্ব। এমনকি কারোর মুখে মাস্ক পর্যন্ত দেখা যায়নি। একদিকে করোনা সংক্রমন রোধ করতে যখন লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। তারই মাঝে এভাবে মন্দিরে গাদাগাদি করে পুজো দেওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। যদিও গৃহবধূ মালতী বিশ্বাস, সুতপা মন্ডলদের কথায়, ” মা বিপত্তারিনীই আমাদের রক্ষা করবেন।”

 

কাটোয়া শহরের ৫ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার ওই দুর্গা স্থানীয় হাজরা পরিবারের কুলদেবী। দেবী এলাকায় হাড়িমা নামে পরিচিত। প্রায় চার’শ বছর আগে হাজরা পরিবারের এক পূর্ব পুরুষ স্বপ্নাদেশ পেয়ে দেবীর প্রতিষ্ঠা করেন। তারপর থেকে শারোদৎসবে ধুমধাম করে পুজো হয়ে আসছে৷ এছাড়াও বিশেষ বিশেষ তিথিতে পুজো হয়। কাটোয়া শহর সহ আশপাশের গ্রামের প্রচুর মানুষ হাড়িমার মন্দিরে পুজো দিতে আসেন। এদিন মন্দিরে বিপত্তারিনীর পুজো ছিল। তাই পুজো দিতে ভিড় জমান প্রচুর সংখ্যক পূন্যার্থী। সরকারি বিধি নিষেধের তোয়াক্কা না করেই ভিড়ে ঠাসা মন্দিরে ঠেলাঠেলি করে পুজো দেন স্থানীয় গৃহবধূরা।

Related Articles

Back to top button
Close