fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

‘পুলওয়ামার শহিদদের নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন যাঁরা, তাঁদের মুখোশ খুলে গিয়েছে’: মোদি

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: পুলওয়ামা হামলায় শহিদ জওয়ানদের আত্নত্যাগ নিয়ে যাঁরা প্রশ্ন তুলেছিলেন, তাঁদের মুখোশ খুলে দিয়েছে পাকিস্তানের মন্ত্রীর স্বীকারোক্তি। গুজরাতের কেভাডিয়া থেকে এ ভাবেই বিরোধীদের আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। পুলওয়ামা হামলায়  যখন দেশের জওয়ানরা শহিদ হয়েছিলেন, তখনও কিছু মানুষ নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থ দেখছিল। দেশ এই জাতীয় মানুষদের ভুলতে পারবে না। এভাবেই সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের জন্মদিন উপলক্ষে জাতীয় ঐক্য দিবসের বক্তৃতায় বিরোধীদের বিঁধলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ।

এদিন স্ট্যাচু অফ ইউনিটিতে সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলকে শ্রদ্ধা জানানোর পর বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী। তখনই তাঁর কথায় উঠে আসে পুলওয়ামা প্রসঙ্গ। তিনি বলেন, ‘‘একটু আগে আধা সেনার প্যারেড দেখতে দেখতে মনে পড়ছিল পুলওয়ামা হামলার কথা। সেই হামলায় আমাদের যে বীর সঙ্গীরা শহিদ হয়েছিলেন, তাঁরা আধা সেনারই অংশ ছিলেন। সেই সময় গোটা দেশ শোকার্ত ছিল। কিন্তু তখনও কিছু লোক নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থ দেখছিল‌। সেই সময় আমার হৃদয়ে বীর শহিদদের গভীর ক্ষত ছিল। তাই বিরোধীদের সমস্ত অশ্লীল অভিযোগ আমি চুপচাপ সহ্য করে গেছি।

পুলওয়ামা হামলা পাকিস্তানের বড় সাফল্য বলে বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের সংসদে দাঁড়িয়ে স্বীকার করে নেন পাক মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী। এর পরই বিজেপি-র তরফ থেকে দাবি করা হয়, পুলওয়ামা হামলায় ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তোলার জন্য কংগ্রেসের ক্ষমা চাওয়া উচিত। কার্যত সেই সুরেই প্রধানমন্ত্রী এ দিন বলেন, ‘প্রতিবেশী দেশে পুলওয়ামায় হামলা নিয়ে স্বীকারোক্তি সেই সমস্ত মানুষের মুখোশ খুলে দিয়েছে যাঁরা এই ঘটনায় শহিদদের আত্নত্যাগ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। আমি এই সমস্ত আক্রমণ সহ্য করেছিলাম কিন্তু শহিদ সেনাদের জন্য আমার মনে গভীর ক্ষত ছিল। আমি এই সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলিকে অনুরোধ করব, দেশের সুরক্ষা, নিরাপত্তাবাহিনীর মনোবলের কথা ভেবে দয়া করে এই ধরনের রাজনীতি করবেন না।’ ২০১৯-এর ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলায় ৪০ জন সিআরপিএফ জওয়ান প্রাণ হারিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন: দেশে ফের দৈনিক করোনা সংক্রমণ ৫০ হাজারের নিচে, ঊর্ধ্বমুখী সুস্থতার সংখ্যা

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার ইমরান খানের মন্ত্রিসভার সদস্য পাকিস্তানের যুক্তরাষ্ট্রীয় মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী ‘সদর্পে’ ঘোষণা করেন, “পুলওয়ামা আমাদের সাফল্য। ঘরে ঢুকে ভারতকে মেরেছি।” তাঁর এই মন্তব্যের পরই সংসদের অন্দরে তীব্র বিতর্ক শুরু হয়ে যায়। তিনিও নিজের ‘ভুল’ বুঝতে পেরে তড়িঘড়ি মন্তব্য বদল করেন। কিন্তু ততক্ষণে তা ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র।

সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ভারতের অবস্থান প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের বৈচিত্রই আমাদের অস্তিত্বের মূল শক্তি। এই কারণেই আমরা অন্যদের থেকে এতখানি আলাদা। আমাদের মনে রাখতে হবে এই একতাই আমাদের শক্তি। যা সবসময় অন্যদের মাথায় ঘুরতে থাকে। তারা সবসময় এই বৈচিত্রকেই আমাদের দুর্বলতায় পরিণত করার চেষ্টা করছে। এই শক্তিগুলিকে চিনে নেওয়া দরকার।’ সর্দার বল্লভভাই পটেলের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে অংশ নিতে দু’ দিনের সফরে গুজরাতে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কেভাডিয়া কলোনিতে সর্দার স্ট্যাচু অফ ইউনিটি থেকে আমেদাবাদ পর্যন্ত দেশের প্রথম সি- প্লেন পরিষেবারও উদ্বোধন করার কথা তাঁর। পাশাপাশি রাষ্ট্রীয় একতা দিবসের প্যারেডেও অংশ নেন তিনি।

Related Articles

Back to top button
Close