fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খকলকাতাহেডলাইন

খারিজ অনলাইনে হাজিরার আর্জি, পুজোয় রুজিরাকে সশরীরে হাজিরার নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিনিধি:  অনলাইনে হাজিরা নয়, সশরীরে উপস্থিত থাকতে হবে আদালতে। কয়লা-কাণ্ডে দিল্লির আদালতে বৃহস্পতিবার খারিজ হয়ে গেল রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনলাইন হাজিরার আবেদন। এদিন মামলার শুনানিতে ভার্চুয়ালি হাজির ছিলেন রুজিরা। তাতে আপত্তি তোলেন ইডি-র আইনজীবী। পাল্টা সওয়াল করেন রুজিরার আইনজীবী। দু’পক্ষের সওয়াল জবাব শেষে আদালত ১২ অক্টোবর রুজিরাকে সশরীরে  হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। তখন পুজো শুরু হয়ে যাবে পুরোদমে। সেদিন দুর্গাপুজোর সপ্তমী। সপ্তমীর দিনই তাঁকে সশরীরে আদালতে হাজিরা দিতে বলা হল। বৃহস্পতিবার বিচারপতি রুজিরার আইনজীবীর অনুরোধে এ দিনের মতো ভার্চুয়াল হাজিরা মেনে নিলেও, পরবর্তীতে তাঁকে সশরীরে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিন দিল্লির পাতিয়ালা হাউজ কোর্টে শুনানিতে ইডি-র পক্ষ থেকে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহেতা এবং অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল পঙ্কজ শর্মা বলেন, আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী রুজিরাকে সশরীরে আদালতে হাজির হতে হবে। সেই নির্দেশ পালন না করার জন্য তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হোক। অন্যদিকে আদালতে রুজিরার আইনজীবী সিদ্ধার্থ লুথরা জানিয়েছেন, তদন্তে সহযোগিতার জন্য তাঁর মক্কেল অনলাইনে হাজির হয়েছেন। করোনা আবহে সন্তানদের রেখে তাঁর পক্ষে দিল্লি সফর করা সম্ভব নয়। যদিও ইডি’র দুই আইনজীবী এভাবে জিজ্ঞাসাবাদে রাজি হননি। তাঁদের দাবি, তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় কিছুদিন আগেই দিল্লির নিকটবর্তী একটি হিল স্টেশনে ছুটি কাটিয়ে গিয়েছেন। এমনকী দিল্লিতে থাকাকালীন রুজিরা একটি বিউটি পার্লারেও গিয়েছিলেন বলে দাবি করেছেন তাঁরা। এরপর আদালত রুজিরার আবেদন খারিজ করে দিয়েছে। গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি না করে আগামী ১২ অক্টোবর সশরীরে তাঁকে আদালতে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি।

উল্লেখ্য, কয়লা-কাণ্ডে তদন্তে নেমে কয়েক মাস আগে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়ে তাঁর স্ত্রীর রুজিরাকে ঘন্টা দুয়েক জিজ্ঞাসাবাদ করেন সিবিআই আধিকারিকরা। এরপর রুজিরার দেওয়া বিভিন্ন তথ্য প্রমাণ খতিয়ে দেখেন তদন্তকারীরা। এরপর তাঁকে দিল্লির ইডি দফতরে ডেকে পাঠান তদন্তকারীরা। কিন্তু দিল্লি যেতে না চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হন রুজিরা। তার ভিত্তিতেই এদিন আদালত রুজিরার আবেদন খারিজ করে  দিয়েছে। এবার দুর্গাপুজোর সপ্তমীতে রুজিরা দিল্লি গিয়ে আদালতে হাজিরা দেন কিনা, সেটাই দেখার।

Related Articles

Back to top button
Close