fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সুবর্ণ রৈখিক ভাষা ও সংস্কৃতি চর্চার ফেসবুক গ্রুপের উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ

ভাস্করব্রত পতি, তমলুক : আবারও করোনা আবহের সংকটকালে অসহায় প্রান্তিক মানুষের পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে এলো ‘সুবর্ণরৈখিক ভাষা ও সংস্কৃতি চর্চা’ বিষয়ক ফেসবুক গ্রুপ “আমারকার ভাষা, আমারকার গর্ব” এর সদস্য-সদস্যারা। এদিনের কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন গ্রুপের এডমিন বিশ্বজিৎ পাল, সুমিত দাস, শিব পাণিগ্রাহী, আনন্দ বিশুই, তপতী রাণা, বিশ্বজিৎ মহাপাত্র, পায়েল সাউ, অঙ্গনা বাগ, বৈশাখী দে, মনিময় সাউ, নরসিংহ পৈড়া, পবন খামরী, মুরলীধর বাগ প্রমুখ।

মেদিনীপুর থেকে গ্রুপের অন্যতম মডারেটর শিক্ষক সুদীপ কুমার খাঁড়া জানান ,”ভাষা সমাজের বাইরে নয়, ভাষা সমাজের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। আমরা ভাষা ও সংস্কৃতি চর্চার গ্রুপে যেমন আমাদের ভাষা ও সংস্কৃতি চর্চা করবো, তেমনি পাশাপাশি আমরা সমাজসেবা ও পরিবেশ সচেতনতামূলক কিছু কাজ করতে চাই। ঝাড়গ্রামের ভেলাইজুড়ি, সাঁকরাইলের মানগোবিন্দপুর ও গোপীবল্লভপুরের ছোট ঝাঁউরির কর্মসূচি তারই অঙ্গ”।

এদিন সকালে এই গ্রুপের উদ্যোগে ঝাড়গ্রাম জেলার গোপীবল্লভপুর-১ ব্লকের ছোট ঝাউরি শিশু শিক্ষা কেন্দ্রে আয়োজন এক ত্রাণ বিতরণ শিবিরে ছোট ঝাউরি গ্রামে ১০১ টি প্রান্তিক পরিবারের হাতে মুসুর ডাল, বিস্কুট, সরিষার তেল, চানাচুর, সোয়াবিন, বিভিন্ন মশলা গুঁড়া, লবণ সহ অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য তুলে দেওয়া হয়। এছাড়াও সবাইকে একটা করে মাস্ক ও সাবান দেওয়া হয়। পাশাপাশি করোনা সচেতনতার বার্তা দেওয়া হয়।

এর আগে এই গ্রুপের উদ্যোগে ঝাড়গ্রাম ব্লকের পাটাশিমূলে জনজাতি অধ্যূষিত ভেলাইজুড়ি গ্রামের ৫০ টি পরিবার, সাঁকরাইল ব্লকের মানগোবিন্দপুর এলাকার ৩৫ টি প্রান্তিক পরিবারের হাতে ত্রাণ তুলে দেওয়া হয়েছিল। পাশাপাশি গত ৫ ই জুন সুবর্ণ রৈখিক অববাহিকার বিভিন্ন স্থানে এই গ্রুপের আহ্বানে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং গত ২০ শে জুন শহীদ সেনা জওয়ানদের স্মৃতিতে গোপীবল্লভপুর-২ নং ব্লকের কুঠিঘাটে ৬০ টি চারাগাছ রোপণ করা হয়।

Related Articles

Back to top button
Close