fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

শচীনদের বিরুদ্ধে করা সুপ্রিম কোর্টের মামলা প্রত্যাহার রাজস্থানের স্পিকারের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  রাজস্থান রাজনীতিতে নতুন জল্পনা। এবার শচীন পাইলট এবং তাঁর অনুগামীদের বিধায়ক পদ বাতিলের দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে করা মামলা প্রত্যাহার করে নিল কংগ্রেস। সোমবার স্পিকারের হয়ে মামলা প্রত্যাহার করতে চেয়ে আদালতে আবেদন করেন কপিল সিব্বল। যদিও মামলা যে প্রত্যাহার করা হতে পারে সেই আন্দাজ আগেই পাওয়া গিয়েছিল। তার কারণ, রাজনৈতিক এই টানাপোড়েন আদালতের চৌহদ্দিতে যাক তা চাইছেন না মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট শিবিরের অনেক বিধায়কও। তাঁদের বক্তব্য, পুরো বিষয়টি রাজনৈতিক ভাবেই ফয়সালা হোক। দলীয় সূত্রের খবর, আপাতত তারা এই লড়াইটা রাজনৈতিক ভাবে লড়তে চায়। পরবর্তীকালে প্রয়োজন পড়লে হাই কোর্টের রায় বিবেচনা করে সুপ্রিম কোর্টে নতুন করে আবেদন করা যাবে। কংগ্রেস হঠাৎ পাইলটের প্রতি এত সহৃদয় কেন হল? তবে কি রাজস্থানের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ঘরে ফেরার ইঙ্গিত দিলেন? নাকি নেপথ্যে গেহলটের অন্য কোনও চাল আছে?

উল্লেখ্য, একাধিকবার মুখ্যমন্ত্রীর ডাকা বৈঠকে হাজির না থাকায় শচীন পাইলট ও তাঁর ১৮ জন অনুগামী বিধায়ককে শোকজ নোটিস পাঠিয়েছিলেন রাজস্থান বিধানসভার স্পিকার সিপি যোশী। জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, তিনদিনের মধ্যে বৈঠকে গরহাজিরার কারণ না দেখাতে পারলে তাঁদের বিধায়কপদ বাতিল হয়ে যাবে। স্পিকারের সেই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে রাজস্থান হাই কোর্টের দ্বারস্থ হন পাইলট শিবিরের বিধায়করা। হাই কোর্টে জয় হয় পাইলট  এবং তাঁর অনুগামীদেরই। জয়পুর হাই কোর্ট স্পিকার সিপি যোশীকে জানিয়ে দেয়, এখনই পাইলট ও তাঁর অনুগামীদের বিরুদ্ধে কোনওরকম ব্যবস্থা নিতে পারবেন না তিনি। হাই কোর্টের এই রায়ের আগেই অবশ্য সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেন স্পিকার। তাঁর দাবি ছিল বিধায়কপদ বাতিল সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র স্পিকারের উপর নির্ভর করে। এতে হাই কোর্ট হস্তক্ষেপ করতে পারে না। সোমবার শীর্ষ আদালতে এই মামলার শুনানি ছিল। কিন্তু শুনানি শুরু হতেই নিজের করা আবেদন প্রত্যাহার করে নেন স্পিকার। তাঁর যুক্তি, রাজস্থান হাই কোর্টের রায় পর্যবেক্ষণের পর তিনি ফের আদালতে আবেদন করবেন।

আরও পড়ুন: অমিত শাহের পরামর্শেই বাজিমাৎ, রাজধানীতে সংক্রমণে লাগাম কেজরি সরকারের

এদিকে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রীর অশোক গেহলটের সঙ্গে রাজ্যপাল কলরাজ মিশ্রের ঠান্ডা লড়াই অব্যাহত। পরিবর্তিত প্রস্তাবে রাজ্যপালকে ৩১ জুলাই বিধানসভা অধিবেষন ডাকার প্রস্তাব দিয়েছিলেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। কিন্তু, সেই প্রস্তাব ফের খারিজ করে দিয়েছেন কলরাজ মিশ্র। উল্লেখ্য, এর আগে আস্থা ভোটের দাবি নিয়ে রাজ্যপালকে বিশেষ অধিবেশন ডাকার আবেদন করেন মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। কিন্তু, সেই প্রস্তাবে অস্পষ্টতার অভিযোগ তুলে তা মুখ্যমন্ত্রীর কাছে ফেরত্‍ পাঠান কলরাজ মিশ্র।শনিবার তাই পরিবর্তিত প্রস্তাব পেশ করা হয়। কিন্তু আর আস্থা ভোটের উল্লেখ করা হয়নি।

এরই মধ্যে রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়ে সরব হয়েছে কংগ্রেস। কলরাজ মিশ্রের ব্যবহার ‘আজ্ঞাবহ’ বলে তোপ দেগেছে হাত শিবির। রাজ্য পরিচালনায় রাজ্যপাল হস্তক্ষেপ করছেন বলেও অভিযোগ। সরকার টিঁকিয়ে রাখতে এর আগে ‘কৌশলে’ আস্থা ভোটের দাবি জানান মুখ্যমন্ত্রী। কারণ পাইলট শিবিরের ১৯ বিধায়ক ছাড়াও কংগ্রেস সরকারের ১০২ বিধায়কের সমর্থন রয়েছে বলে রাজভবনে গিয়ে দাবি করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।রাজনৈতিক চাপ বজায় রাখতে অবশ্য কংগ্রেস বিধায়করা শুক্রবারই রাজভবন ধর্ণায় বসেছিলেন। প্রয়োজনে রাষ্ট্রপতি ভবন ঘেরাওয়েরও হুমকি দিয়েছিলেন অশোক গেহলট।

 

Related Articles

Back to top button
Close