fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

মা দুর্গার ভাসানের সঙ্গে তৃণমূলেরও বিসর্জন হয়ে যাবে: অর্জুন সিং

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: একুশের নির্বাচনে তৃণমূলের বিদায় নিশ্চিত। সোমবার উত্তর কলকাতার খান্নার কাছে বিজেপির উত্তর কলকাতা জেলা আয়োজিত সাংবাদিক বৈঠকে একথা বলেন ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। তিনি বলেন, ‘ তৃণমূল নেত্রী বুঝতে পেরে গিয়েছেন আর ক্ষমতায় ফিরতে পারবেন না। মা দুর্গার বিসর্জনের সঙ্গেই তৃণমূলের বিসর্জন হয়ে যাবে।’

নবান্নে প্রশাসনিক রদবদল নিয়ে তাঁর কটাক্ষ, ‘ এখন আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যসচিব হয়েছেন। উনি যে সরকারের সঙ্গে থাকেন সেই সরকারের পতন নিশ্চিত হয়। বুদ্ধবাবুর সঙ্গে দক্ষিণ ২৪ পরগণায় ভ্যান রিক্সায় গিয়েছিলেন। বুদ্ধু বাবুর সরকার চলে গিয়েছে। এবার উনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর সরকারের মুখ্যসচিব হয়েছেন নিশ্চিত ভাবে এই সরকারের পতন হবে।
তিনি এদিন আরও বলেন, ‘তৃণমূলের অনেক নেতা নেত্রী আছেন, যাঁরা বিজেপিতে যোগদান করার জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। তবে বিজেপি যাচাই করে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়াবে। আজ যদি বাছ বিচার না করে আমরা দরজা খুলে দিই তাহলে তৃণমূলের যে সে হুহু করে আমাদের দলে ঢুকে পড়বে।’

 আরও পড়ুন: বিজেপি বাংলায় ক্ষমতায় এলে সিঙ্গুরে কৃষিভিত্তিক শিল্প হবে: লকেট চট্টোপাধ্যায়

প্রাক্তণ মুখ্যসচিব রাজীব সিনহাকে কেনও পূর্নবাসন দিলেন মুখ্যমন্ত্রী? অর্জুন সিং বলেন, ‘করোনা মহামারির সময় আড়াই হাজার কোটি টাকার স্বাস্থ্য দপ্তরের জিনিস কিনেজেন কোনও টেন্ডার ছাড়াই। সবাইটাই রাজীব সিনহার নির্দশে হয়েছে। তাই ওঁকে প্রাইজ পোষ্টিং দিতে হবে। সেই জন্যই রাজীব সিনহাকে অবসরের পরও শিল্প উন্নয়ন নিগমের শীর্ষপদে বসানো হয়েছে।’ এই বৈঠকেই বিজেপির উত্তর কলকাতার জেলা কমিটির তালিকা ঘোষণা করা হয়। আগেই জেলা সভাপতি ঘোষণা করা হয়েছিল। এদিন বাকি ৮ জন সহ সভাপতি, ৩ জন সাধারণ সম্পাদক, ৮ জন সম্পাদকের নাম ঘোষিত হয়।

Related Articles

Back to top button
Close