fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

গণেশ পুজোয় মাতল দিনহাটার ঝুড়ি পাড়া এলাকার বাসিন্দারা

নিজস্ব প্রতিনিধি, দিনহাটা: করোনা ভাইরাসের এই কঠিন এই সময়ে গণেশ পুজোয় মাতল দিনহাটার ঝুড়ি পাড়া এলাকার বাসিন্দারা। আমরা কজন এর পরিচালনায় ঝুড়ি পাড়া অষ্টপ্রহর মাঠে শনিবার এই পুজো অনুষ্ঠিত হয়। এদিন ধুমধাম করে এই পুজো অনুষ্ঠিত হলে সেখানে উপস্থিত ছিলেন উদ্যোক্তাদের নির্মল সরকার,  উমা দে , সমীর সরকার থেকে শুরু করে অনেকেই। টানা পাঁচ মাস পর গণেশ চতুর্থীর এই অনুষ্ঠানকে ঘিরে বেশ উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যায় এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে।

উল্লেখ্য, বিজেপি সাংসদ নিশিথ প্রামানিক গত কয়েক বছর ধরে দিনহাটা ভেটাগুড়িতে গণেশ পুজো করে আসছিলেন। সেই পুজো উপলক্ষে সাত দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠান হয়ে থাকে। এবছর করোনা আবহের  জন্য এই পুজো বড় আকারে না হলেও নিয়ম রক্ষা করা হয়। এদিকে দিনহাটার ঝুড়ি পাড়া এলাকায় আমরা কজন এর উদ্যোগে এ বছর এই  পুজো দ্বিতীয় বর্ষ বলে উদ্যোক্তারা জানান। রীতিমতো পুজো মণ্ডপ তৈরি করে স্থানীয় এলাকার বাসিন্দারা নিজেরাই এই পুজোয় সামিল হন।

করোনা ভাইরাসের কঠিন এই সময়কালে গত প্রায় পাঁচ মাসেরও বেশি সময় ধরে যখন সব রকম অনুষ্ঠান বন্ধ রয়েছে তখন দিনহাটা শহরের ঝুড়িপাড়া এলাকায় পুজোকে ঘিরে উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যায়। গোটা এলাকাকে সাজিয়ে তোলা হয় আলোক মালায়। দিনহাটা শহরে যখন প্রতিদিনই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলছে, ঠিক সেই সময় ঝুড়ি পাড়া এলাকায় শ্রদ্ধার সাথে ধুমধাম করে  গণেশ পুজো হলেও সামাজিক দূরত্ব কতটা বজায় ছিল, তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।

উদ্যোক্তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কথা দাবি করলেও প্রশাসনকে বিশেষ নজরদারি চালানোর দাবি উঠেছে।
পুজো উদ্যোক্তাদের নির্মল সরকার জানান, গত দুই বছর ধরে তারা এই পুজো করে আসছেন। এবছর করোনা আবহের মধ্যেও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পুজোর পাশাপাশি যারা প্রতিমা দর্শনে আসবেন, তাদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে। মাস্ক ছাড়া যেমন কেউ প্যান্ডেলে প্রবেশ করতে পারবেন না তেমনি  দর্শনার্থীদের স্ক্রীনিং করেই ভেতরে ঢোকার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close