fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশবিনোদনহেডলাইন

আদালতে খারিজ রিয়ার জামিনের আবেদন, আপাতত অভিনেত্রীর ঠিকানা মুম্বইয়ের বাইকুল্লা জেল

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: আপাতত তার ঠাঁই মুম্বইয়ের বাইকুল্লা জেল। সুশান্ত কাণ্ডে জামিন পেলেন না রিয়া চক্রবর্তী। ২২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জেলেই থাকবে হবে তাকে।
প্রসঙ্গত বলিউডের অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঘটনায় জড়িয় পড়ে তার প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর নাম। এরপর এই ঘটনা নিয়ে চলতে থাকে দীর্ঘ চাপান-উতোর। তদন্ত করতে সামনে আসে বলিউডের মাদক আসক্তির কথা। এরপরেই রিয়া ও তার ভাই সৌভিক চক্রবর্তীর নাম জড়িয়ে পড়ে। জানা যায় ড্রাগের নেশায় আসক্ত ছিলেন প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত। তার নিজের বাড়ির ছাদের বসত সেই আড্ডা। সেখানে তাকে সঙ্গ দিতেন রিয়া। আর তার ভাই সৌভিক নিয়ে আসতেন নানা ধরনের নেশার দ্রব্য। এরপরে রিয়া, তার ভাই সৌভিক-সহ আরও ৮ জনকে এনসিবি গ্রেফতার করে। আজ রিয়া সহ তাঁর ভাই সৌভিক চক্রবর্তী ও অন্যদেরও জামিনের আবেদন খারিজ করে জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

শুক্রবার আদালতে রিয়া নিজের জীবনের ঝুঁকির কথা আদালতে জানান। পাশাপাশি, তিনি দাবি করেন, প্রায়শই তাঁর কাছে ধর্ষণ ও খুনের হুমকি আসছে। সেই কারণে জেল হেফাজতে তিনি সুরক্ষিত নন। কিন্তু বিচারপতি এসব আবেদন খারিজ করে স্পষ্টই জানান, আগামী ১১ দিন তাঁকে জেল হেফাজতেই থাকতে হবে। এই রায়ের পর দৃশ্যতই ভেঙে পড়েন রিয়া ও তাঁর পরিবার।

আদালতে রিয়ার আইনজীবী জানান, তিনি কোনও অপরাধ করেননি এবং তাঁকে মিথ্যা মামলায় জড়ানো হচ্ছে। কিন্তু নার্কোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর পক্ষ থেকে জানানো হয়, রিয়া তাঁর প্রেমিক সুশান্ত সিং রাজপুতকে মাদক ব্যবহারে সাহায্য করেছিলেন। এবং নিজেও সেই মাদক ব্যবহার করতেন। এনসিবি আরও জানিয়েছে, রিহার ক্রেডিট ও ডেবিট কার্ড থেকে অনলাইনে লেনদেন করে এই ড্রাগ কেনা হয়েছিল। ফলে তিনি শুধু নিজেই নয়, অপর ব্যক্তিকে মাদক নিতে সহায়তা করেছিলেন। এটাও শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

একইসঙ্গে এনসিবি আদালতকে জানিয়েছে, অভিযুক্তকে যদি জামিন দেওয়া হয়, তাহলে সে সাক্ষ্যপ্রমাণ নষ্ট করে দিতে পারে।
গতকালই সুশান্তের প্রাক্তন প্রেমিকা অঙ্কিতা লোখান্ডে রিয়ার বিরুদ্ধে একগুচ্ছ প্রশ্নবাণ তুলে দিয়ে বলেন, রিয়া রাজপুত পরিবারকে কেন তার ছেলের ড্রাগের আসক্তি কথা গোপন করেছিল! রিয়া যেখানে রাজপুত পরিবারকে সুশান্তের ডিপ্রেশনের ভোগার জন্য ওষুধ নেওয়ার কথা জানাতে পেরেছিল, তাহলে ড্রাগের ব্যাপারে চুপ থাকার অর্থ কি ছিল? তার মানে তিনি নিজেই(রিয়া) হয়তো এই নেশার সঙ্গে জড়িত ছিলেন তা এই মাদক সেবনের কথা গোপন রাখতে চেয়েছিলেন!

.

Related Articles

Back to top button
Close